বাঘারপাড়ায় নৌকার কর্মী টিটো হত্যা মামলায় চার্জশিট

বাঘারপাড়ায় নৌকার কর্মী টিটো হত্যা মামলায় চার্জশিট

প্রজন্ম রিপোর্ট

যশোরের বাঘারপাড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত নৌকা মার্কার কর্মী খালেদুর রহমান টিটো হত্যা মামলায় সাবেক চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী ও তার ভাইসহ ১৩ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ।
চার্জশিটভূক্ত আসামিরা হলেন, বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান দীন মোহাম্মদ দিলু পাটোয়ারী, তার ভাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ পাটোয়ারী, হলদা গ্রামের উজির খালাসীর ছেলে শরিফুল, বেতালপাড়ার ছুরমান মোল্লার ছেলে মনিরুল কানা, এজের আলীর ছেলে সাইদ, মৃত মুনছুর বিশ্বাসের ছেলে আসাদ, শাহ আলমের ছেলে বাবু, সামসুর বিশ্বাসের ছেলে রবিউল, জয়নালের ছেলে শাহিনুর রহমান, মোক্তার মোল্লার ছেলে আজিম, হলিহট্ট গ্রামের নাজমুল হুদার ছেলে মাসুদ হোসেন, আবু তাহেরের ছেলে জসিম এবং গরিবপুরের মৃত দলিল উদ্দিনের ছেলে রেজাউল মুন্সি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই শেখ আনসার আলী আদালতে এ চার্জশিট জমা দিয়েছেন।
মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, নিহত খালেদুর রহমান টিটো বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকের কর্মী হয়ে কাজ করছিলেন। নির্বাচনের আগের দিন ৯ ডিসেম্বর টিটো ও আওয়ামী লীগের কয়েকজন কর্মী বেতালপাড়া বাজারে নৌকার নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। এ সময় প্রতিপক্ষের লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় টিটোসহ বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হন। গুরুতর আহত টিটোকে উদ্ধার করে প্রথমে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে নির্বাচনের দিন সকালে ঢাকায় নেয়ার পথে তিনি মারা যান। এব্যাপারে নিহতের ভাই বদর উদ্দিন বাঘারপাড়া থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় দিলু পাটোয়ারী ও তার ভাই নূর মোহাম্মাদ পাটোয়ারীসহ ১৭ জনকে আসামি করা হয়।
তবে অভিযুক্তদের মধ্যে বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ মোল্লা, ছাত্রলীগ নেতা আতাউল্লাহ সোহান, ফেরদৌস হোসেন সোমরাজ ও আমিনুর রহমান মিঠু ঘটনার সাথে জড়িত না মর্মে তাদেরকে এই মামলা থেকে অব্যহতির জন্য চার্জশিটে আবেদন করা হয়েছে।

মন্তব্য