দাফনের ১০ দিন পর কলেজ ছাত্র ইমনের মরদেহ উত্তোলন

প্রজন্ম ডেস্ক

কুষ্টিয়ার মিরপুরে মাদকাসক্তি পুনর্বাসন কেন্দ্রে মারা যাওয়া কলেজ ছাত্র ইমনের মরদেহ দাফনের ১০দিন পর উত্তোলন করা হয়েছে।

আদালতের নির্দেশে শনিবার বেলা ১১টায় মিরপুর গোবিন্দগুনিয়া গোরস্থানের কবর থেকে তার মরদেহ উত্তোলন করে পুলিশ। এ সময় মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাসের উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাস জানান, আদালতের নির্দেশে ময়না তদন্তের জন্য ইমনের মরদেহটি  উত্তোলন করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

গত ১৯ নভেম্বর কুষ্টিয়ার মিরপুরে ‘সমর্পণ মাদকাসক্তি, মানসিক চিকিৎসা সহায়তা ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে’ মারা যান কাদেরপুর গ্রামের এজাজুল আজিম রিপনের ছেলে কলেজ ছাত্র ইমন (২০) । ওই প্রতিষ্ঠানের সিসি টিভির ফুটেজে ইমনকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়লে বিষয়টি আমলে নেয় প্রশাসন।

ভিডিও ফুটেজ দেখার পরে ২৭ নভেম্বর পাঁচজনকে আসামি করে মিরপুর থানায় একটি মামলা করেন নিহত ইমনের চাচা শাজাহান আলী স্বপন। তিনি মামলায় আব্দুল মতিন, মিন্টু বিশ্বাস, হাবিবুর রহমান হাবিব, অশীত কুমার বিশ্বাস ও জিকু বিশ্বাসকে আসামি করেন।

মামলার দিনই প্রতিষ্ঠানের মালিক আব্দুল মতিনসহ মিন্টু বিশ্বাস ও হাবিবুর রহমান হাবিবকে আটক করে পুলিশ এবং প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে উপজেলা প্রশাসন। সেই সাথে উক্ত প্রতিষ্ঠানে চিকিৎসাধীন ৯ জন রোগীর মধ্যে ৬ জন রোগীকে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়।  বাকী তিনজনকে কুষ্টিয়ার ‘ফেরা মাদক নিরাময় কেন্দ্রে’ প্রেরণ করে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

মন্তব্য