বাঁশিতে ফুঁ দিলেন প্রধানমন্ত্রী, স্বপ্ন পূরণ হলো পাবনাবাসীর

প্রজন্ম ডেস্ক

পাবনার সঙ্গে বিভাগীয় শহর রাজশাহীর রেলসংযোগ সৃষ্টির জন্য ‘ঢালারচর এক্সপ্রেস’ নামে নতুন একটি আন্তনগর ট্রেনের যাত্রা শুরু হলো রোববার থেকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রোববার (২৬ জানুয়ারি) বেলা সোয়া ১১টায় এ ট্রেনের উদ্বোধন করেছেন।

দ্বিতীয় ধাপে ট্রেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য ঢালারচর স্টেশনে সুধী সমাবেশের আয়োজন করেছিল পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে বিভাগ। অনুষ্ঠানে পাবনা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের বিভাগ, রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় কর্মকর্তা, রেল মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও স্থানীয় জেলা-উপজেলা পর্যায়ের রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এলাকার শতশত মানুষ স্টেশন এলাকায় ভিড় করেন।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান প্রকৌশলী আলফাত্তা মোহম্মদ মাসুদুর রহমান ও পাকশী রেলওয়ে বিভাগীয় ব্যবস্থাপক আসাদুল হক এসব তথ্য জানিয়েছেন।

প্রকল্প পরিচালক আসাদুল হক বলেন, প্রথমে এর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছিল ৯৮২ কোটি ৮৬ লাখ ৫৭ হাজার টাকা। ২০১৩ সালে প্রথম সংশোধনীতে ব্যয় বাড়ানো হয় ৪৫৩ কোটি ১৬ লাখ ১০ হাজার টাকা। প্রায় ৪৬ শতাংশ ব্যয় বাড়ানোর পর প্রকল্পের মোট ব্যয় দাঁড়ায় এক হাজার ৭৩৭ কোটি দুই লাখ ৬৭ হাজার টাকা।

এদিকে পাবনা এক্সপ্রেস নাম পরিবর্তন করে ‘ঢালারচর এক্সপ্রেস’ করায় পাবনার সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তারা দাবি জানিয়েছেন পূর্বের নাম বহাল করার জন্য।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) বিকেলে রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলামসহ রেলপথ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে রাজশাহীর কর্মকর্তা এবং পাকশীর বিভাগীয় রেলওয়ের কর্মকর্তারা ঢালারচর রেলস্টেশন এলাকা পরিদর্শন করেন। এখন থেকে ওই এলাকার মানুষ ঢালারচর, বাঁধেরহাট, কাশিনাথপুর এবং চিনাখড়া, তাঁতীবন্দ, দুবলিয়া, রাঘবপুর, পাবনার মানুষরা রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে কম খরচে ট্রেনে যাতায়াতের সুযোগ পাবেন।

‘বাংলাদেশ রেলওয়ের ঈশ্বরদী থেকে পাবনা হয়ে ঢালারচর পর্যন্ত নতুন রেললাইন নির্মাণ’ প্রকল্পে মোট ১২টি প্যাকেজে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে। অবশেষে নতুন এই রেলপথ চালু হওয়ায় পাবনাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হলো।

এ ব্যাপারে রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় ব্যবস্থাপক আসাদুল হক বলেন, নতুন এই ট্রেনটি চালু হওয়ায় এলাকার মানুষজন সহজে ও স্বল্প খরচে বিভাগীয় শহরে বিভিন্ন কাজে যাতায়াত করতে পারবেন।

ট্রেনটি সকাল ৭.২৫ মিনিটে ঢালারচর থেকে ছেড়ে ১১.১০ মিনিটে রাজশাহী পৌঁছাবে। ফিরতি পথে রাজশাহী থেকে বিকেল ৪.২৫ মিনিটে ছেড়ে রাত ৮.১০ মিনিটে ঢালারচর পৌঁছাবে। এর আগে গত বছরের ১৩ নভেম্বর এই পথে প্রথম পরীক্ষামূলক ট্রেন চলাচল করেছে।

মন্তব্য