বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ, আইনজীবীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

প্রজন্ম ডেস্ক

বিয়ের প্রলোভনে তরুণীকে (২৬) ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় মো. বেলাল হোসেন (৩১) নামে এক আইনজীবীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বুধবার (২৯ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে খাগড়াছড়ির নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবং জেলা ও দায়রা জজ রেজা মো. আলমগীর হাসান এ রায় দেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত মো. বেলাল হোসেন খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গার মাতব্বরপাড়ার হাজি আলী আক্কাসের ছেলে এবং চট্টগ্রামে আইনজীবী হিসেবে কর্মরত।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, মুঠোফোনের সূত্র ধরে ২০১৩ সালে মো. বেলাল হোসেনের সঙ্গে ওই তরুণীর পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর মো. বেলাল হোসেন বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার তরুণীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন। একপর্যায়ে তরুণী বিয়ের জন্য চাপ দিলে অস্বীকার করেন বেলাল।

২০১৪ সালের ২৬ জুন তরুণী বাদী হয়ে মাটিরাঙ্গা থানায় একটি মামলা করেন। তদন্ত শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সুমন কুমার আদিত্য একই বছরের ১০ অক্টোবর বেলালকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দেন। সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ছয় বছরের মাথায় এ রায় ঘোষণা করা হয়।

রায়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জানিয়ে বাদীপক্ষের আইনজীবী মো. জসিম উদ্দিন মজুমদার বলেন, তার বিরুদ্ধে সব অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত।

মন্তব্য