সাত বছর বয়সী শিশু ধর্ষণ, ধর্ষকের বয়স ৬০ বছর

প্রজন্ম ডেস্ক

কুড়িগ্রামে ৭ বছর বয়সী এক কন্যা শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে ৬০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে কুড়িগ্রামের কচাকাটা থানার বল্লভের খাষ ইউনিয়নের বেরুবাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

এসময় শিশুটি রক্তক্ষরণে অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয় পল্লী চিকিৎসক দিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠায় এবং ধর্ষককে আটক করে।

শিশুটি স্থানীয় একটি মাদরাসার প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় শিশুটির দাদা নুর হোসেন শেখ বাদী হয়ে ধর্ষক হবিবরকে আসামি করে কচাকাটা থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ ও ধর্ষণের শিকার মেয়েটির পরিবার জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে শিশুটি পাশের বাড়ির আঙিনায় খেলা করছিল। এসময় ওই বাড়ির মালিক ৬০ বছরের হবিবর রহমান মেয়েটিকে টাকা দেয়ার কথা বলে ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে শিশুটি রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়িতে গিয়ে তার মা এবং দাদিকে জানায়।

কচাকাটা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন অর রশিদ জানান, খরব পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা ঘটানাস্থলে গিয়ে মেয়েটিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠাই এবং অভিযুক্তকে আটক করি। রাতেই তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হয়েছে। বুধবার হাবিবুরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক মেডিকেল অফিসার আল আমিন মাসুদ জানান, শিশুটির শারীরিক অবস্থা এখন ভালো। ভিকটিমের স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য