স্বামীকে ফোনে বলে গলায় ফাঁস দিলেন গৃহবধূ

প্রজন্ম ডেস্ক

রাজধানীর ডেমরায় স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে সানজিদা আক্তার শান্তা (২২) নামের এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। শান্তার স্বামীর দাবি, তার ওপর অভিমান করে সে নিজেই গলায় ফাঁস দিয়েছে।

শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সোয়া ৫টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) আব্দুল খান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, নিহতের গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার মাসুমপুর গ্রাম। বর্তমানে পরিবার নিয়ে ডেমরার হাজীনগর ইমরান হোসেনের বাড়ির চতুর্থতলায় ভাড়া থাকতেন তিনি। তার স্বামী আবুল কালাম আজাদ একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন।

শান্তার মৃত্যুর বিষয়ে ঢামেকে তার স্বামী আজাদ সাংবাদিকদের বলেন, সকালে মেয়েকে খাবার খাওয়ানো নিয়ে আমাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আমি অফিসে চলে যাই। দুপুরে শান্তা নিজেই আমাকে ফোন দিয়ে জানায়, সে গলায় ফাঁসি দিতে যাচ্ছে।

তিনি জানান, শান্তার ফোন পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তিনি বাসায় এসে দেখেন রুমের দরজা বন্ধ। দরজা ভেঙে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় দেখতে পান শান্তাকে। এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতাল ও পরে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মন্তব্য