বিজেপির কারণে ভারত আজ সাম্প্রদায়িক: বাম জোট

প্রজন্ম ডেস্ক

ভারতের দিল্লিতে বিক্ষোভকারীদের ওপর ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের সমর্থকদের হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

শুক্রবার বিকেলে জোটের উদ‌্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বাম জোটের নেতারা বলেন, ‘হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকারের ধর্মীয় উগ্রতার কারণে ভারত আজ সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। বহু ধর্ম ও বহু ভাষার দেশ ভারত আজ হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকারের ধর্মীয় উগ্রতার কারণে সাম্প্রদায়িক ভারতে পরিণত হয়েছে। সাম্প্রদায়িক উন্মাদনায় দিল্লি জ্বলছে। অন্যদিকে ধর্মনিরপেক্ষ প্রগতিশীল মানুষ মুসলিম সম্প্রদায়ের পাশে দাঁড়িয়ে এই উগ্র অন্ধত্ববাদী সাম্প্রদায়িক শক্তিকে মোকাবিলা করছে।’

নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘ভোটের জন্য জনগণকে বিভক্ত ও সংঘাতে জড়িয়ে ফেলার ইতিহাস অনেক পুরনো। হিন্দি, হিন্দু, হিন্দুস্থান শ্লোগান তুলে বহু বৈচিত্র্যের ভারতকে ধ্বংস করছে তারা। কখনো বাবরি মসজিদ, কখনো পুলওয়ামা, কখনো কাশ্মীর ইস্যু তুলে তারা হিন্দু-মুসলিম বিভেদকে জাগিয়ে রাখছে। বৃহৎ কর্পোরেট মালিকদের শোষন ও জনগণের দারিদ্র্য আড়াল করতে ধর্মীয় কার্ডকে বার বার ব্যবহার করছে বিজেপি। ’

ভারতের রাজ্যে রাজ্যে যে সহিংসতার আগুন জ্বালিয়েছে বিজেপি, তার পরিণতি ভয়ঙ্কর হবে বলে নেতৃবৃন্দ হুঁশিয়ার করেন।

নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশের জনসাধারণকে কোন ধরনের সাম্প্রদায়িক উস্কানিতে পা না দেয়ার আহ্বান জানান।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বজলুর রশিদ ফিরোজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদ সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন প্রমুখ।

বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুরানা পল্টনে গিয়ে শেষ হয়।

মন্তব্য