ফ্রান্সের গোপন সামরিক ঘাঁটিতে করোনার হানা

প্রজন্ম ডেস্ক

 ফ্রান্সের একটি গোপন সামরিক ঘাঁটিতে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফ্লোরেন্স পার্লি। শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) ইরানি সংবাদমাধ্যমে এ খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

ফরাসি রাজধানীর উত্তরে অবস্থিত ১১০ ক্রিল বিমান ঘাঁটির কয়েকজন করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়েছে বলে জানান তিনি। অবশ্য আক্রান্তদের সঠিক সংখ্যা উল্লেখ করেন নি তিনি। কিন্তু স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, একজন বেসামরিক কর্মীসহ অন্তত চার ব্যক্তি করোনার কবলে পড়েছে।

ঘাঁটিতে আসা-যাওয়াসহ সব তৎপরতা বন্ধ করে দেয়ার কথা উল্লেখ করে ফ্লোরেন্স পার্লি বলেন, মহামারি ছড়িয়ে পড়া সংক্রান্ত তদন্ত চলছে। একই সাথে ফরাসি অন্যান্য সামরিক ঘাঁটিতে প্রতিরোধক ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানান তিনি।

দ্রুততম সময়ের মধ্যে ১১০ ক্রিল বিমান ঘাঁটির করোনা প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে আনা না গেলে পরিণামে ফরাসি সামরিক বাহিনীকে মারাত্মক সমস্যায় পড়তে হবে। ফরাসি সেনাবাহিনীর গোয়েন্দা বিভাগের অনেকগুলো ইউনিটসহ দেশটির অন্যান্য কমান্ডো বা বিশেষ বাহিনীর ইউনিট রয়েছে এ ঘাঁটিতে। ঘাঁটিতে করোনার সংক্রমণ কিভাবে ঘটল তা নিয়ে কোনও কথা বলা হয় নি। তবে করোনাভাইরাসের উৎস কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত চীনের উহান থেকে ফরাসি নাগরিকদের সরিয়ে আনতে বিমান এখান থেকে পাঠানো হয়েছিল। করোনা আক্রান্ত ফরাসি নাগরিকদের ঘাঁটিতেই রাখা হয়েছিল। অন্যদিকে বিমানের ক্রুদের রাখা হয়েছিল কোয়ারেন্টাইন বা সঙ্গরুদ্ধ অবস্থায়।

এদিকে শুক্রবার পর্যন্ত ফ্রান্সে নিশ্চিতভাবে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা নতুন করে ১৯জন যোগ হওয়ায় মোট ৫৭জনে দাঁড়িয়েছে।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে ২ হাজার ৯২৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আর এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৫ হাজার ১৭৩ জন। কভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৩৯ হাজার ৩৩২ জন।

ভাইরাসটি এখন চীনের বাইরের দেশগুলোতে হু হু করে ছড়িয়ে পড়ছে। চীনের বাইরে ৫২টি দেশে আক্রান্ত রোগী রয়েছে। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের মতো চীনের চেয়ে দেশটির বাইরে বেশি নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত কয়েক দিন ধরে ইরান ও ইতালিতে আক্রান্তের সংখ্যা কয়েকগুণ বেড়েছে। ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে আফ্রিকার সবচেয়ে জনবহুল দেশ নাইজেরিয়াসহ অন্তত নতুন ১০টি দেশে ভাইরাস আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শরীরে প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে শ্বাসকষ্ট, জ্বর, সর্দি, কাশির মত সমস্যা দেখা দেয়।

মন্তব্য