টাঙ্গাইলের সড়কে ঝরল বাবা-মেয়েসহ ৬ প্রাণ

প্রজন্ম ডেস্ক

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের বটতলী নামক স্থানে ট্রাক, প্রাইভেটকার ও সিএনজি অটোরিকশার ত্রিমুখী সংঘর্ষে বাবা-মেয়েসহ ৬ জন নিহত হয়েছেন। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে ৩ জনকে কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের বেলতৈল গ্রামের খলিল মিয়ার ছেলে হৃদয় (১৮), কুড়াতলী গ্রামের জহুর উদ্দিনের ছেলে সোনাম উদ্দিন (৬০), একই গ্রামের হাশেম আলীর ছেলে মাশরাফুল (৮), জাকির মাস্টার (৪৫), হাফিজ উদ্দিন (৬০) ও তার মেয়ে রুনু বেগম (৩০)। নিহতরা প্রত্যেকেই সিএনজিচালিত অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, সোমবার সকালে সখিপুরের দিক থেকে ছেড়ে আসা মাটিভর্তি একটি ড্রাম ট্রাক সামনে থাকা যাত্রীবাহী সিএনজিকে ওভারটেক করতে গেলে সেটিকে চাপা দেয়। একইসময় বিপরীত দিক থেকে আসা প্রাইভেটকারের সঙ্গেও মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে প্রাইভেটকারটিও দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

এ দুর্ঘটনায় সিএনজি অটোরিকশাটি উল্টে দুমড়ে-মুচড়ে যাত্রী হৃদয় ও মাশরাফুল ঘটনাস্থলেই মারা যান। অপর যাত্রী সোনাম উদ্দিনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান। বাকি তিনজন হাসপাতালে মারা যান।

প্রাইভেটকারের চালক আহত রাব্বি জানান, ড্রাম ট্রাকের চালক সিএনজিকে ওভারটেক করার সময় সিএনজিকে চাপা দেয় এবং প্রাইভেটকারের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।

এ ব্যাপারে মির্জাপুরের দেওহাটা পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক(এসআই) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ড্রাম ট্রাকটি আটক করা হলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহগুলো পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে।

মন্তব্য