শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুই সপ্তাহ বন্ধ রাখার আহ্বান বিএনপির

প্রজন্ম ডেস্ক

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুই সপ্তাহ বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।

ফখরুল বলেন, আমরা ইতোমধ্যে করোনাভাইরাস আক্রান্তদের আরোগ্য কামনা করছি এবং এই রোগ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য আল্লাহর কাছে প্রার্থনা জানাচ্ছি। একইসঙ্গে আমরা দল, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মী এবং দেশবাসীকে করোনা আক্রান্তদের প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান ও এই রোগ যাতে আর না ছড়ায় সে লক্ষ্যে জনসচেতনামূলক কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান জানাচ্ছি। এছাড়া দুস্থ রোগীদের সুচিকিৎসায় সহায়তা দান এবং রোগ প্রতিরোধের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও সরঞ্জাম নিয়ে জনগণের পাশে থাকার জন্যও আমরা সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

এদিকে কারাবন্দি খালেদার বিষয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বিনা অপরাধে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়ে দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে কারাগারে রয়েছেন। তিনি দারুণভাবে অসুস্থ এবং সুচিকিৎসার অভাবে ও দীর্ঘদিন বন্দি থাকায় তার অসুস্থতা বেড়েই চলেছে। দেশের প্রচলিত আইনে তার চেয়েও কম বয়সী ও কম অসুস্থ এবং বেশি সাজাপ্রাপ্ত সরকারি দলের নেতারা জামিনে মুক্তি পেয়ে এমপি-মন্ত্রী হয়েছে, কিন্তু দেশনেত্রীকে প্রাপ্য জামিন দেয়া হচ্ছে না। অন্তত সুচিকিৎসার জন্য হলেও অতিদ্রুত তার মুক্তির জন্য আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, দেশবাসী আশা করে যে, তাদের সেই আবেদন গৃহীত হবে এবং দেশনেত্রীর মতো একজন বিশিষ্ট নাগরিক বিনাচিকিৎসায় নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

তিনি বলেন, আগামীকাল দেশের সকল মহানগর ও জেলায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আমরা সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলাম। কিন্তু দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটায় সে কর্মসূচি আপাতত স্থগিত ঘোষণা করছি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, বেগম সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য