করোনার গুজব ছড়িয়ে গ্রেফতার ৬

প্রজন্ম ডেস্ক

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ইন্দোনেশিয়ায় অন্তত ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দেশটির পুলিশের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা এপিপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

পুলিশ বলছে, সোমবার ইন্দোনেশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর সুরাবায়ায় একজন রোগী করোনাভাইরাসের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন দাবি করে ভুয়া তথ্য ফেসবুকে পোস্ট করেছেন এক নারী। এই তথ্যের সত্যতা না পাওয়ায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একই ধরনের মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে দেশটিতে আরও পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের একজন ফেসবুকে দেয়া পোস্টে সৌদি আরবে ওমরাহ পালনের জন্য যাওয়ার সময় জাকার্তা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত এক নারী মারা গেছেন বলে দাবি করেন।

ইন্দোনেশিয়ায় মিথ্যা তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে নতুন আইন করা হয়েছে। এই আইনে গুজব ছড়ানোর সর্বোচ্চ সাজা ছয় বছরের কারাদণ্ড। দেশটির যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সিমুয়েল আব্রিজানি প্যানগারাপান বলেন, ইন্দোনেশিয়ায় করোনাভাইরাস নিয়ে যাতে অন্য কেউ গুজব ছড়াতে না পারে এটি তাদের জন্য শিক্ষা।

গত মাসে অনলাইনে করোনাভাইরাস নিয়ে গুজব ছড়ানোর দায়ে অন্তত দুই নারীকে গ্রেফতার করা হয়। সোমবার পর্যন্ত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মুসলিম এই দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছয় থেকে লাফিয়ে ১৯ জনে পৌঁছেছে।

তবে বিশ্বের চতুর্থ সর্বোচ্চ জনবহুল এই দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজ্ঞানীরা। তারা বলছেন, ইন্দোনেশিয়ায় এই ভাইরাসে অনেক মানুষ আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশে নতুন করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ প্রথমবারের মতো ধরা পড়ে। এতে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ১৩৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজার ৭৫৭।

করোনায় চীনের পর এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে ইতালিতে। দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৬৩ জনে, আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৯ হাজার ১৭২ জন।

মন্তব্য