অস্ট্রেলিয়ায় লাফিয়ে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা

প্রজন্ম ডেস্ক

অস্ট্রেলিয়ায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত দেশটিতে এক হাজার ৬৩০ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। অপরদিকে, রুবি প্রিন্সেস নামে যে প্রমোদতরীটি অস্ট্রেলিয়ায় নোঙ্গর করার জন্য অনুমতি দেয়া হয়েছে সেখানকার ৪৮ যাত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

সোমবার সকাল পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আশঙ্কাজনকহারে বৃৃদ্ধি পেয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৩৫৫ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৬৩০ জনে। এর মধ্যে ৪৮ জন রুবি প্রিন্সেস প্রমোদতরীর। ওই প্রমোদতরীর ২ হাজার ৭শ যাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা না করেই তাদের জাহাজ থেকে নামার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

নর্থ সাউথ ওয়েলসে নতুন করে ১৩৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বলে সোমবার নিশ্চিত করা হয়েছে। ফলে ওই রাজ্যে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬৯। অপরদিকে ভিক্টোরিয়াতে নতুন করে আরও ৫৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। ফলে সেখানে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫৫। এছাড়া কুইন্সল্যান্ডে নতুন করে আরও ৬০ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় সেখানে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৩১৯ জন।

অপরদিকে রাজধানী ক্যানবেরাতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ১২। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩২। অস্ট্রেলিয়ায় এখন পর্যন্ত সাতজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কারোও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে, করোনার বিস্তার ঠেকাতে ফেডারেল সরকার সব ধরনের পাব, ক্যাফে, জিম, উপাসনালয় বন্ধ করে দিয়েছে। লোকজন প্রশাসনের নির্দেশনা মেনে না চলায় কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। তবে সব স্কুল বন্ধ করার পক্ষপাতী নন প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। কিন্তু এক্ষেত্রে কোনো বাধ্যবাধকতা রাখা হয়নি। অভিভাবকরা চাইলে তাদের সন্তানদের বাড়িতেই রাখতে পারবেন।

তবে করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার প্রভাব পড়েছে দেশটির অর্থনীতিতে। সবকিছু বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনেক মানুষ চাকরি হারাচ্ছেন। একত্রে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মরিসন।

মন্তব্য