চীন থেকে গাজীপুরে আনা হলো বিপুল পরিমাণ কিট মাস্ক পিপিই

প্রজন্ম ডেস্ক

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের জনগণকে নিরাপত্তা দিতে দ্রুতগতিতে বিশেষ ব্যবস্থায় চীন থেকে ৩০ হাজার কিট, ১০ লাখ মাস্ক ও ৮ হাজার পারসোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) এনেছেন মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) দুপুরে এসব সামগ্রী দেশে এসে পৌঁছেছে বলে জানান তিনি।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস থেকে নগরবাসীকে সুরক্ষিত রাখাই এখন তার প্রধান দায়িত্ব। তাই করোনাভাইরাস শনাক্ত ও সুরক্ষার প্রস্তুতি হিসেবে তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে চীন থেকে এসব উপকরণ এনেছেন। যা বৃহস্পতিবার দুপুরে দেশে এসে পৌঁছানোর পর বিকেল থেকেই নগরবাসীর মধ্যে বিতরণ শুরু হয়েছে।

তিনি আরও জানান, শুধু নগরবাসীকেই নয়, পুরো জেলাকে সুরক্ষার জন্য জেলাব্যাপী এসব সামগ্রী বিতরণ করা হবে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা তৈরি করতে এবং কার্যকরী পদক্ষেপ বাস্তবায়নের জন্য নগরীর ৫৭টি ওয়ার্ডে ইতোমেধ্যে ৬৫টি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কোয়ারেন্টাইনে না থেকে কোনো প্রবাসী এলাকায় ঢুকে পড়ল কিনা, অপ্রয়োজনে কোনো নাগরিক রাস্তাঘাট, হাট-বাজারে ঘোরোফেরা করছেন কিনা- এসব মনিটর করবেন এ কমিটির সদস্যরা।

মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম জানান, করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করতে ইতামেধ্যে নগরীর আড়াই হাজার মসজিদের ইমাম ও মোয়োজ্জিনকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে ও ব্যস্ততম স্থানগুলোতে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সচেতনতামূলক প্রচার প্রচারণা চালানো হচ্ছে। গাজীপুর মহানগর ব্যস্ততম ও ঘনবসতিপূর্ণ হওয়ায় নগরীর মানুষকে হাত ধুয়ে জীবানুমুক্ত করার জন্য বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে, বিভিন্ন বাজার ও বাসস্ট্যান্ডে অস্থায়ীভাবে পাঁচ হাজার প্লাস্টিকের বেসিন বসানো হয়েছে।

চীন থেকে আনা এসব কিট জেলার বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে, মাস্কগুলো নগরবাসীর মধ্যে এবং পিপিইগুলো নাগরিকদের সেবা প্রদানকারীদের মধ্যে বিনামূল্যে প্রদান করা হবে বলে জানান মেয়র।

মন্তব্য