ভারতে ট্রেনের কামরায় হচ্ছে আইসোলেশন কক্ষ

প্রজন্ম ডেস্ক

ভারতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। করোনার ধাক্কা সামলাতে এবার বিশেষ ব্যবস্থা করতে শুরু করেছে ভারতীয় নর্দান রেলওয়ে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রেনের কোচ বদলে হাসপাতালের মতো করে ফেলা হয়েছে। রেল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে কোচগুলোর নাম দেয়া হয়েছে ‘আইসোলেশন কোচ’। নর্দান রেলওয়ের দিল্লি ডিভিশন এই বিশেষ কয়েকটি কোচ তৈরি করেছে।

এই নন-এসি কোচগুলোতে রয়েছে ১০টি করে কেবিন। প্রত্যেকটি কেবিনে রয়েছে একটি করে বাথরুম, কোচে রয়েছে একাধিক শৌচাগার। চারটি শৌচাগারের মধ্যে তিনটি ভারতীয় এবং একটি ওয়েস্টার্ন টয়লেট। প্রত্যেকটি কেবিনে একজন করে করোনা রোগী থাকতে পারবে। দুটি টয়লেটকে সম্পূর্ণ গোসলের যোগ্য শৌচাগার হিসেবে তৈরি করা হয়েছে।

কেবিনের মধ্যে রয়েছে চার্জিং পয়েন্ট, ফলে যে কেউ এটি সহজে ব্যবহার করতে পারবে। কেবিনে রাখা রয়েছে বোতল রাখার জায়গা। একাধিক ব্যাগ ও কোনো কিছু ঝুলিয়ে রাখার বন্দোবস্তও করা হয়েছে। রয়েছে ওষুধ অন্যান্য চিকিৎসা সরঞ্জাম রাখার জায়গাও।

ট্রেনের শৌচাগারে রয়েছে বেসিন। হাত ধোয়ার একাধিক কল রয়েছে, গোসলের জন্য থাকছে শাওয়ার সাবান ইত্যাদি রাখার জায়গা। ফলে সহজে বাড়ির বাথরুমের মতোই এটিকে ব্যবহার করতে পারবে যে কেউ।

এছাড়া চিকিৎসক ও নার্সদের জন্য রয়েছে আলাদা থাকার জায়গা। যেখানে চিকিৎসকরা থাকতে পারবেন। আলাদা করে একটি পর্দা দিয়ে চিকিৎসক এবং আক্রান্তদের জায়গা পৃথক করা হয়েছে।

আগামী ১০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ৬ এপ্রিলের মধ্যে এরকম ২৮টি কোচ তৈরি করে ফেলা হবে। তারপর ৭ এপ্রিল থেকে সপ্তাহে দুটি করে এরকম কোচ প্রস্তুত করতে পারবে ভারতীয় রেল। সব রকম ব্যবস্থা করেই রোগীর সেবা দেয়ার জন্য এই অস্থায়ী হাসপাতালে ব্যবস্থা করেছে নর্দান রেলওয়ে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে ভারতজুড়ে ২১ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধে মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকে ভারতজুড়ে লকডাউন শুরু হয়।

মন্তব্য