করোনা আক্রান্ত বৃদ্ধকে বেঁধে রাখা হলো মৃত্যুর আগ পর্যন্ত

প্রজন্ম ডেস্ক

মহামারি করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা। এমনকি মানবসেবায় ব্যস্ততা এতই যে, ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া, গোসল ও বিশ্রাম নেয়ারও সময় পাচ্ছেন না তারা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা করায় চিকিৎসকদের বীরের মর্যাদা দিয়েছেন চীনের উহানবাসী। সেখানে কিনা পাকিস্তানের স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনা আক্রান্ত রোগীকে হাসপাতালের বেডে বেঁধে রাখলেন।

বিষয়টি অনেক বেদনার হলেও এমনই ঘটনা ঘটেছে পাকিস্তানে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউ ও কলকাতা২৪*৭ এই তথ্য জানিয়েছে। পাকিস্তানের লাহোরের মায়ো হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

টুইটারে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এক জনৈক ব্যক্তি দাবি করছেন, ৭৩ বছরের এক করোনা আক্রান্ত রোগীকে মৃত্যুর অপেক্ষায় হাসপাতালের বেডে বেঁধে রেখেছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা।

কিস্তানি সাংবাদিক নায়লা ইনায়েত এই ভিডিও টুইট করেছেন। ভিডিওতে শোনা যাচ্ছে, তাকে ছেড়ে দেয়ার জন্য কাতর অনুনয় বিনয় করছেন ওই আক্রান্ত ব্যক্তি।

পাকিস্তানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, কয়েক ঘণ্টা বিনা চিকিৎসায় পড়ে থাকার পড়ে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের করোনাভাইরাস আইসোলেশন ওয়ার্ডের চিকিৎসক ও নার্সরা আক্রান্ত রোগীকে ছুঁয়েও দেখেননি বলে অভিযোগ।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, বৃদ্ধ তার বিছানা থেকে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান। আর তারপরেই তাকে বেঁধে দেন রোগীরা। ওই অবস্থায় প্রায় ১০ ঘন্টা বেঁধে রাখা হয় ওই ব্যক্তিকে।

জানা গেছে, মৃত ওই বৃদ্ধার নাম মহাম্মদ হানিফ। কদিন আগে তার করোনভাইরাস ধরা পড়লে তাকে ওই হাসপাতালে আনা হয়।

তবে এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করেনি কলকাতা২৪*৭।

এদিকে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিও টিভি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মায়ো হাসপাতালে ৭৩ বছর বয়সী ওই রোগীর মৃত্যুর বিষয়টি অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছেন লাহোরের মুখ্যমন্ত্রী পুনজব উসমান বুজদার।

মন্তব্য