মাজেদের দেওয়া তথ্য জাতির সামনে প্রকাশের দাবি

প্রজন্ম ডেস্ক

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার দায়ে দণ্ডিত আবদুল মাজেদের ‘দেওয়া তথ্য অনুযায়ী’ এতোদিন দেশে-বিদেশে কারা তাকে প্রশ্রয় দিয়েছে, সেই তথ্য জাতির সামনে প্রকাশ করার দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম।

রোববার (১২ এপ্রিল) এক ভিডিও বার্তায় এই দাবি জানান তিনি।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জেলে চার নেতাকে হত্যাকারী খুনি আবদুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় জাতি স্বস্তি পেয়েছে। আমরাও স্বস্তি পেয়েছি। ইতিহাসের সবচেয়ে জঘন্যতম এই হত্যকারী।’

“এখন যেটা প্রয়োজন, খুনির তথ্য অনুযায়ী-বিশেষ করে জিয়াউর রহমান (সাবেক সেনা প্রধান ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা), এরশাদ (জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ), খালেদা জিয়ার (বিএনপির চেয়ারপারসন) আমলে সে কিভাবে একজন সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করে গেলো। এই তথ্যটি দেশবাসীর জানা দরকার।”

তিনি বলেন, ‘এই সেনা শাসকদের বিশেষ করে জিয়া ও খালেদা জিয়ার আমলে সে যেভাবে সাবেক কর্মকর্তা হয়ে ক্যান্টেনমেন্টের মতো সুরক্ষিত জায়গায় পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করার সুযোগ পেয়েছে, এমনকি পাশের দেশ ভারতে দীর্ঘ কয়েকযুগ সে পলাতক ছিলো। কারা তাকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছিলো? কোন কর্মকর্তারা তাকে দেশের মধ্যে উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তায় আসীন করেছিলো এটা দেশবাসীর তা জানা প্রয়োজন। খুনির তথ্য অনুযায়ী এই জিনিসটি প্রকাশ করার জন্য আমি সরকারের কাছে আবেদন জানাচ্ছি।’

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্যতম হত্যাকারী ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। শনিবার (১১ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১২ টা ১ মিনিটে কেরানীগঞ্জে অবস্থিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

এর আগে গত সোমবার (৬ এপ্রিল) দিবাগত রাতে আবদুল মাজেদকে রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

পরদিন মঙ্গলবার তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। এরপর বৃহস্পতিবার তার মৃত্যুর পরোয়ানা জারি করেন আদালত। পরোয়ানা জারির পর ওইদিনই রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেন আত্মস্বীকৃত এই খুনি। শুক্রবার প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দেন রাষ্ট্রপতি।

উল্লেখ্য, ৭৫-এর ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করে আব্দুল মাজেদসহ ১২ ঘাতক৷

মন্তব্য