৯৯৯-এ ফোন, বাড়ির উঠানে তরুণীর লাশ পেল পুলিশ

প্রজন্ম ডেস্ক

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের মধ্যপাড়া এলাকা থেকে লুবনা (১৮) নামে এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৩ এপ্রিল) সকালে গলায় দড়ি পেঁচানো অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত লুবনা পৌরশহরের কাজীপাড়া এলাকার মুসলিম মিয়ার মেয়ে। এ ঘটনায় রানা কর (৩০) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। তিনি শহরের একটি ফার্মেসির দোকানে কাজ করেন।

সোমবার ভোররাতে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯- এ ফোন পেয়ে মধ্যপাড়া এলাকার বসাকপাড়া মহল্লার অরবিন্দ করের বাড়ির উঠানে গলায় দড়ি পেঁচানো অবস্থায় লুবনার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে সদর থানা পুলিশের একটি টহল দল। তবে ৯৯৯- এ কে ফোন দিয়েছিলেন সেটি তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

লুবনার পরিবারের লোকজন জানান, রানা কর রোববার রাত ১২টার দিকে লুবনাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান। সকালে বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারেন রানার বাড়ির পেছনে এক মেয়ের মরদেহ পড়ে রয়েছে। রানার সঙ্গে মুঠোফোনে লুবনা প্রায়ই কথা বলত। এতে বাধা দিলেও লুবনা তা শোনেনি। তাই রাতে রানা ডেকে নিয়ে গেলেও কেউ বাধা দেয়নি। রানাই লুবনাকে হত্যা করে মরদেহ বাড়ির ছাদ থেকে পেছনে অন্য বাড়িতে ফেলে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তারা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান জানান, রানার বাড়ির সীমানা সংলগ্ন পাশের বাড়ি থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় রানাকে আটক করা হয়েছে।

মন্তব্য