ধোঁকা দিয়ে বাড়ি থেকে ডেকে কিশোরীকে গণধর্ষণ

প্রজন্ম ডেস্ক

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। বন্ধ হয়ে যাওয়া বেকারিতে কাজের কথা বলে ডেকে নিয়ে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে বেকারির অন্য চার শ্রমিক। শুক্রবার রাতে উপজেলার জিনারি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ শনিবার দুপুরে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে। গ্রেফতার করা হয় জাহাঙ্গির, তারা মিয়া ও জামান নামে তিন যুবককে।

পুলিশ জানায়, হোসেনপুর উপজেলার শাহেদল ইউনিয়নের এসআরডি স্কুলের পেছনে একটি বেকারিতে শ্রমিকের কাজ করতেন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বিন্নাটি এলাকার এক কিশোরী। চলমান করোনা পরিস্থিতে বেকারিটি বন্ধ হয়ে যায়।

বেকারি চালু হয়েছে, কাজে যোগ দিতে হবে এমন মিথ্যা খবরে শুক্রবার বিকেলে মেয়েটিকে হোসেনপুর যেতে বলে তারই সহকর্মী জিনারী গ্রামের মৃত আ. সাত্তারের ছেলে জাহাঙ্গির। মেয়েটি সরল বিশ্বাসে হোসেনপুর গেলে জাহাঙ্গির সন্ধ্যার দিকে একই গ্রামে তার বোনজামাই তারা মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায়। রাতে মেয়েটিকে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে জাহাঙ্গির, তারা মিয়া, জামান ও সুমন তাকে জিনারী এলাকায় মনসুর মেম্বারের বাড়ির পেছনে একটি জঙ্গলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

মেয়েটির অভিযোগ, ভোরে বিষয়টি মনসুর মেম্বারকে জানানো হলে সেখানে আপস-মীমাংসার চেষ্টা করা হয়।

খবর পেয়ে আজ শুক্রবার দুপুরের দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। গ্রেফতার করা হয় তিন ধর্ষককে। তবে পালিয়ে যায় সুমন নামে আরেকজন।

হোসেনপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সোনাহর আলী জানান, মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। তিন যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরেকজন পালিয়ে গেছে। তাকে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

হোসেনপুর থানা পুলিশের ওসি শেখ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য