ডিসির প্রেসবিজ্ঞপ্তি নকল করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী কারাগারে

প্রজন্ম ডেস্ক

কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের সংবাদ বিজ্ঞপ্তি নিজের নাম ব্যবহার করে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে প্রচার-প্রচারণা চালানোয় মীর মনিরা (২২) নামে এক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গতকাল শনিবার সকালে জেলা প্রশাসনের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কুষ্টিয়া মডেল থানায় ওই তরুণীর নামে মামলা করেন।

মামলার পর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়। মনিরা কুষ্টিয়া শহরের কোর্টপাড়া এলাকার বাসিন্দা। তিনি ঢাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী বলে জানা গেছে।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার এক চিকিৎসকের মাধ্যমে জানতে পারেন যে, মীর মনিরা নামের একজন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেনের পরিচয় ব্যবহার করে বিভিন্ন ডকুমেন্ট তৈরি করে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মাধ্যমে প্রচার করছেন এবং নিজেকে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক হিসেবে পরিচয় দিয়ে মানুষকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। মীর মনিরার পরিচয় জানার পর তাকে ও তার আত্মীয়দের শুক্রবার জেলা প্রশাসকের বাংলোয় ডেকে আনা হয়।

সেখানে জিজ্ঞাসাবাদে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট লুৎফুন্নাহারের কাছে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন মনিরা।

মনিরা জানান, তারা সাত বন্ধু মিলে ম্যাসেঞ্জারে ফটোশপের মাধ্যমে বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রদান করে আসেন।

মামলার বাদী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি করোনাভাইরাস প্রসঙ্গে জনসাধারণের জ্ঞাতার্থে জেলা প্রশাসক প্রতিদিন সংবাদ বিজ্ঞপ্তি জেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে পোস্ট দিতেন। ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তির কপিতে জেলা প্রশাসকের নাম ও স্বাক্ষর এডিট করে সেখানে মীর মনিরা নাম ও স্বাক্ষর দিয়ে সেটা তার পরিচিত ব্যক্তিদের কাছে পাঠাতেন। এটা তিনি মজা করে করতেন বলে জানিয়েছেন।

কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মোস্তফা জানান, আইসিটি আইনে মামলায় ওই তরুণীকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে শনিবার বিকেলে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য