প্রবাসীর স্ত্রী-সন্তান হত্যা ও আত্মহত্যায় মহিলা পরিষদের উদ্বেগ

প্রজন্ম ডেস্ক

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার আবদার এলাকায় মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী ও তিন সন্তানকে গলা কেটে হত্যা এবং মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার শায়েস্তা ইউনিয়নের বেগুনটিউরি গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রীর লাশ উদ্ধারের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

পাশাপাশি জড়িতদের শনাক্ত করে দ্রুত গ্রেফতার, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে নারীর অধিকার নিয়ে সোচ্চার এ সংগঠনটি।

শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম এবং সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু স্বাক্ষরিত এক যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন, গত ২৩ এপ্রিল বিকেলে ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার গোড়াবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা মালয়েশিয়া প্রবাসী কাজলের স্ত্রী স্মৃতি আক্তার পার্শ্ববর্তী শ্রীপুর উপজেলার আবদার গ্রামে জমি কিনে বাড়ি করেছিলেন। কাজলের স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে সেই বাড়ির দ্বিতীয় তলায় বসবাস করছিলেন। প্রবাসীর ছোট ভাই দুপুর ১২টার দিকে ডেকে সাড়া না পেয়ে স্থানীয়দের জানালে প্রতিবেশি এক যুবক মই বেয়ে দোতলায় উঠে স্মৃতি আক্তারকে বিবস্ত্র ও রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন।

অন্যদিকে গত ২২ এপ্রিল বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে সিংগাইর পৌর এলাকার নয়াডাঙ্গি মহল্লার পান বিক্রেতা শাহজাহানের পুত্র কোহিনুর ইসলাম (১৮) ও তার অপর সহযোগী একই মহল্লার পলাশের পুত্র রুপমকে (১০) নিয়ে মালয়েশিয়া প্রবাসী আলামিনের স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে। এ সময় শ্বশুর-শাশুড়ি বিষয়টি জেনে যায়। গত ২৩ এপ্রিল ওই গৃহবধূ লজ্জা-অপমান সহ্য না করতে পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন, দেশের এই সংকটময় পরিস্থিতিতেও সারাদেশে নারী ও কন্যাশিশুর প্রতি সহিংতায় বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গভীর উদ্বিগ্ন। গৃহবধূর আত্মহনন ও নৃশংস হত্যার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করে দ্রুত গ্রেফতার, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের জোর দাবি জানান তারা।

সেইসঙ্গে এ ধরনের ঘটনায় আশু কার্যকর বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। একই সঙ্গে ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা প্রতিরোধে সবাইকে বিশেষভাবে সচেতন ও সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়।

মন্তব্য