বগুড়ায় বোরোর বাম্পার ফলন, ন্যায্যমূল্য নিয়ে শঙ্কা

প্রজন্ম ডেস্ক

বগুড়ায় ক্ষেতে ক্ষেতে এখন বোরো ধান কাটার উৎসব  চলছে। বোরোর বাম্পার ফলনে খুশি এখানের কৃষক। কিন্তু ধানের ন্যায্য দাম পাওয়া নিয়েই দুশ্চিন্তা তাদের।

জেলায় রিকশা ও কল-কারখানার কর্মহীন শ্রমিকরা ক্ষেতে ধান কাটতে শুরু করায় শ্রমিক সংকটও তেমনটা নেই।

জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, এ পর্যন্ত জেলার সাড়ে ৪ শতাংশ জমির ধান কাটা হয়েছে। আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে ৭০ শতাংশ ধান কাটার উপযোগী হয়ে উঠবে।

জেলায় শুরুতে মণপ্রতি নতুন বোরোর ধানের দাম ছিল ৯০০ টাকা। কিন্তু হঠাৎ করে সেই ধানের দাম ৮০০ টাকায় নেমে এসেছে। ধানের দাম যদি আরো কমে আসে তবে কৃষকদের  লোকসানের মুখে পড়তে হবে।

বগুড়ার গোহাইল ইউনিয়েনের শালিকা গ্রামের কৃষক মোস্তাফিজার রহমান জানান, তিনি নিজের ১৫ বিঘা জমিতে বোরো চাষ করেছেন। প্রতি বিঘাতে ( রোপণ, সেচ, কাটা, মাড়াই ) তার খরচ হচ্ছে প্রায় ১০ হাজার টাকা। বিঘাতে ২৩ থেকে ২৫ মণ ধান পাওয়ার আশা করছেন তিনি।

মোস্তাফিজার জানান, তার নিজের জমি বলেই এতে হয়তো অল্প কিছু লাভ থাকবে। কিন্তু যারা জমি লিজ নিয়ে ধান চাষ করেছেন তাদেরকে লোকসানের মুখে পড়তে হবে। যারা লিজ নিয়েছেন তাদের বিঘা প্রতি খরচ পড়বে প্রায় ১৮ হাজার টাকা। ফলে তারা লোকসানে পড়বেন। তবে তারা সরকারি গুদামে ধান বিক্রি করতে পারলে লোকসানের হাত থেকে বেঁচে যাবে। কারণ, খাদ্য বিভাগ এবার প্রতি মণ ধান ১০৪০ টাকায় ধান সংগ্রহ করছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবুল কাসেম আজাদ জানান, এবছর জেলায় ১লাখ  ৮৮ হাজার ৬১৫ হেক্টর জমিতে ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ৭ লাখ  ৭৪ হাজার ৬৮০ মেট্রিক টন। অনেক কৃষি কর্মকর্তাই মনে করছেন ধান উৎপাদন কৃষি বিভাগের লক্ষ্যমাত্রাকেও ছাড়িয়ে যাবে।

মন্তব্য