দুইদিনের সাঁড়াশি অভিযানে ৩০টি ড্রেজার ধ্বংস

প্রজন্ম ডেস্ক

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার পদ্মা নদীতে দুইদিনের সাঁড়াশি অভিযানে ৩০টি ড্রেজার মেশিন ও লক্ষাধিক ফুট পাইপ ধ্বংস করেছে উপজেলা প্রশাসন।

মঙ্গলবার বিকেলে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় এ ঘটনায় আটজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪-৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ মামলা করেছেন দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের রবিউল্লাহ ব্যাপারী পাড়ার মজিবর মন্ডলের স্ত্রী নাছিমা বেগম।

মামলার আসামিরা হলেন- সালাম, সুমন, উম্বার কাজী, গিয়াস, কুদ্দুস মাঝি, সোরাপ, সহিদ ও মো. রবিউলসহ অজ্ঞাত আরও ৪-৫ জন।

সোমবার ও মঙ্গলবার গোয়ালন্দ উপজেলা প্রশাসন পদ্মা নদীর দৌলতদিয়া ক্যানাল থেকে উজানচরের কামারডাঙ্গী পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ড্রেজার মেশিন ধ্বংস করেছে।

মামলার বাদী নাছিমা বেগম জানান, দৌলতদিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের রবিউল্লাহ ব্যাপারী পাড়া এলাকায় নদীর তীরবর্তী তাদের পাঁচ বিঘা ফসল জমি রয়েছে। অবৈধ ড্রেজিংয়ের কারণে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে তাদের জমি। এতে তাদের অন্তত ১০ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। ড্রেজিংয়ে তারা বাধা দিতে গেলে ড্রেজার মালিক প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেন। এজন্য তিনি মামলা করেছেন।

গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশের ওসি আশিকুর রহমান বলেন, নাছিমা বেগমদের ফসলি জমি ড্রেজারের কারণে নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। অভিযান চালিয়ে ইতোমধ্যে সেখানকার দুটি ড্রেজার জব্দ করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত আসামিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

গোয়ালন্দের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান চালিয়ে বেশ কিছু ড্রেজার মেশিন ও পাইপ ধ্বংস করা হয়েছে।

মন্তব্য