‘শপিংমল খোলা আত্মঘাতী, এবারের ঈদ আনন্দের না’

প্রজন্ম ডেস্ক

ঢালাওভাবে শপিং মল, দোকানপাট খুলে দিয়ে জনসমাগমের সুযোগ দেয়া আত্মঘাতী হবে বলে মনে করে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ। একই সঙ্গে দলটি মনে করে এবারের ঈদ আনন্দের ঈদ না।

মঙ্গলবার দলটির সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এক বিবৃতিতে বলেন, করোনা সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকার সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ নির্মূল আইন ২০১৮ জারি করে সমগ্র দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে। সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে ও দফায় দফায় ছুটি বৃদ্ধি করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, ঘরে থাকা, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হবার জন্য কঠোর নির্দেশ জারি করেছে। গণপরিবহন বন্ধ রেখেছে।

ঔষধ-খাদ্যপণ্য-নিত্যপণ্যের দোকান ছাড়া সকল দোকানপাট, শপিংমল, হাটবাজার, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস আদালত বন্ধ রেখেছে। মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়, জুমার জামাত-তারাবির জামাত-ঈদের জামাতসহ অন্যান্য ধর্মের উপাসনালয়ে জনসমাগম বন্ধ রেখেছে। মৃত ব্যক্তির জানাজা-দাফন-দাহ-শেষকৃত্যে আপনজনসহ জনসমাগম বন্ধ রেখেছে। অঞ্চলভিত্তিতে লকডাউন করেছে।

একই নগর-শহর-জেলা-উপজেলার এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় চলাচল-যাতায়ত বন্ধ রেখেছে। ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকায় প্রবেশ ও ঢাকা থেকে ঢাকার বাইরে যাওয়া বন্ধ রেখেছে। এসব সরকারি নির্দেশ কার্যকর করতে প্রশাসন মাঠে কাজ করছে। পুলিশ সাথে সেনাবাহিনী রাস্তায় টহল দিচ্ছে। সরকারের এতো বাস্তব, যৌক্তিক ও কঠোর পদক্ষেপের পরও আইইডিসিআর আশংকা করছে মে মাসে সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা ৫০ হাজার অতিক্রম করবে।

জাসদ নেতৃদ্বয় বলেন, এবারের ঈদ আনন্দের ঈদ না, শপিংয়ের ঈদ না। জাসদ নেতৃদ্বয় এই সংকটেও যাদের শপিংয়ের সামর্থ্য আছে তাদের শপিংয়ের অর্থ দিয়ে শপিং না করে কর্মহীন আয়হীন নিরূপায় অসহায় মানুষের পাশে খাদ্য সাহায্য নিয়ে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। তারা বলেন, কর্মহীন আয়হীন নিরূপায় অসহায় মানুষরা ঈদের দিন দুই বেলা পেটভরে খেতে পারলে সেটাই হবে এবারের ঈদের সব চেয়ে আনন্দ।

মন্তব্য