নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থাকা করোনা আক্রান্ত নারীর মৃত্যু

প্রজন্ম ডেস্ক

নীলফামারীতে করোনা আক্রান্ত এক নারীর (৫০) মৃত্যু হয়েছে। রোববার ভোরে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ওই নারীর বাড়ি জলঢাকা উপজেলার পশ্চিম গোলমুন্ডা গ্রামে।

এ নিয়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে দুইজনের মৃত্যু হলো। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জলঢাকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর প.প কর্মকর্তা ডা. আবু হাসান মো. রেজওয়ান কবীর।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ওই নারী গত কয়েকদিন আগে করোনা উপসর্গ নিয়ে আক্রান্ত হন। ৬ মে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয় এবং ৮ মে পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে। এরপর থেকে তাকে তার নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছিল।

এর আগে জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের সোলেমান মাস্টারপাড়া গ্রামের ৬২ বছরের এক বৃদ্ধ জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্টে নিয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পরে তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়।

নীলফামারীর সিভিল সার্জন ডা. রনজিৎ কুমার বর্মন জানান, নীলফামারী জেলায় এ পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন মোট ৪০ জন। এরমধ্যে জেলা সদরে ১৫ জন, ডিমলা উপজেলায় ১০ জন, জলঢাকা উপজেলায় ৬ জন, সৈয়দপুর উপজেলায় ৬ জন ও কিশোরগঞ্জ উপজেলায় ৩ জন। জেলার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। আর হোম আইসোলেশনে ছিলেন ৬ জন। তার মধ্যে এক নারীর মৃত্যু হলো। অন্যরা জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

মন্তব্য