করোনাভাইরাস সম্পর্কিত শিশুদের বিরল রোগের লক্ষণ

প্রজন্ম ডেস্ক

সাম্প্রতিক সময়ে নতুন করোনাভাইরাস সম্পর্কিত বিরল একটি রোগ বিশ্বজুড়ে শিশুদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে। শিশুদের নতুন এই অসুস্থতাকে চিকিৎসকরা ‘ইনফ্লেমেটরি সিনড্রম’ হিসেবে অভিহিত করেছেন। এই সিনড্রম অনেকটা কাওয়াসাকি রোগ এবং টক্সিক শক সিনড্রমের অনুরূপ।

টক্সিক শক সিনড্রম (টিএসএস) সাধারণত অল্প বয়সি নারীদের ক্ষেত্রে ট্যাম্পন ব্যবহারের সাথে সম্পর্কিত, তবে প্রকৃতপক্ষে শিশুসহ যেকোনো কোনো বয়সের মানুষের এ রোগ হতে পারে।

এই রোগটি বিরল কিন্তু প্রাণঘাতী। ব্যাকটেরিয়া শরীরে প্রবেশ করে ক্ষতিকারক টক্সিন ছড়িয়ে দেওয়ার কারণে এ রোগ হয়ে থাকে।

ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থা এনএইচএস জানিয়েছে, ‘টিএসএস খুব দ্রুত খারাপের দিকে যায় এবং তাৎক্ষণিক চিকিৎসা না করা হলে এটি মারাত্মক হতে পারে। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে যদি শনাক্ত করা যায় এবং চিকিৎসা করা যায়, তাহলে বেশিরভাগ লোক সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে ওঠে।’

এনএইচএসের তথ্যমতে, টিএসএসের ৯টি মূল লক্ষণ রয়েছে। এগুলো হচ্ছে-

* তীব্র জ্বর।

* ফ্লু জাতীয় উপসর্গ যেমন মাথাব্যথা, ঠান্ডা লাগা, ক্লান্তি বা ক্লান্তি অনুভব, গলা ব্যথা এবং কাশি।

* খারাপ বোধ করা এবং অসুস্থ হয়ে পড়া।

* ডায়রিয়া।

* রোদে পোড়া জাতীয় ব্যাপক র‌্যাশ।

* ঠোঁট, জিহ্বা এবং চোখ লাল হয়ে যাওয়া।

* মাথা ঘোরা বা অজ্ঞান হয়ে যাওয়া।

* শ্বাসকষ্ট।

* বিভ্রান্তি।

অন্যদিকে কাওয়াসাকি রোগের ৭টি মূল লক্ষণ রয়েছে। এগুলো হচ্ছে-

* পাঁচ দিনের বেশি জ্বর।

* শরীরে র‌্যাশ।

* গলার গ্রন্থি ফুলে যাওয়া।

* শুষ্ক ও ফাটা ঠোঁট।

* হাত ও পায়ের আঙুল লাল হয়ে যাওয়া।

* চোখ লাল হওয়া।

* ডায়রিয়া।

আপনার শিশুর মধ্যে এসব লক্ষণ খেয়াল করলে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা সহায়তা নেওয়া জরুরি।  

এনএইচএসের মতে, টক্সিক শক সিনড্রম (টিএসএস) বা কাওয়াসাকি রোগ  হচ্ছে, জরুরি চিকিৎসা প্রয়োজন এমন শারীরিক অবস্থা। এই লক্ষণগুলো অন্যান্য রোগের কারণেও হতে পারে। কিন্তু আপনার শিশুদের মধ্যে লক্ষণগুলোর সংমিশ্রণ থাকলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।’

মন্তব্য