সৌদির সঙ্গে মিল রেখে ঈদ করছে বরিশালের হাজারো মানুষ

প্রজন্ম ডেস্ক

বরিশালের কয়েক হাজার মানুষ সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোববার (২৪ মে) ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে। তারা সবাই চট্টগ্রাম জেলার চন্দনাইশ উপজেলার এলাহাবাদ দরবার শরিফের অনুসারী। এবার করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদ থাকতে সুরক্ষা ও সামাজিক দূরত্বের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে তারা ঈদ উদযাপন করছেন ।

বরিশাল নগরীর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর সাগরদী মৃধাবাড়ি শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের হরিনাফুলিয়া চৌধুরী বাড়ি শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডের জিয়া সড়ক শাহ্সুফি মমতাজিয়া জামে মসজিদে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নগরীর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের তাজকাঠি এলাকার হাজিবাড়ি জামে মসজিদে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। মাওলানা দেলোয়ার হোসেন নামাজে ইমামতি করেন।

এছাড়াও বাবুগঞ্জ উপজেলার ওলানকাঠী এলাকার সরোয়ার খলিফার বাড়ি, খানপুরায় জাহাঙ্গীর সিকদারের বাড়ি, কেদারপুরের মান্নান হাওলাদারের বাড়ি ও মাধবপাশার আমীর দুয়ারী বাড়ি জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসব মসজিদে সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

খানপুরার জাহাঙ্গীর সিকদার ও মাধবপাশার আমির দুয়ারী বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে তারাও আজ ঈদ উদযাপন করছেন।

একই এলাকার প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম জানান, তারা ২৪ মে থেকে রোজা রাখছেন। সে হিসাবে গতকাল শনিবার ৩০ রোজা পূর্ণ করেছেন।

এছাড়া বরিশাল নগরীর সাগরদী এলাকার দাসকাঠী, টিয়াখালীর চৌধুরী বাড়ি, সদর উপজেলার চরকিউট্টা গ্রামে-হাফেজ লোকমানের বাড়ি, মুলাদি উপজেলার চরকালেখা গ্রামে শাহ্সুফি বাড়ি, মেহেন্দিগঞ্জের তালুকদারচর গ্রামের কয়েকটি বাড়ি, বাকেরগঞ্জ উপজেলার সুন্দরকাঠি গ্রামের সুন্দরকাঠি এলাকার কয়েকটি বাড়ি, হিজলা উপজলোর কয়েকটি বাড়িসহ জেলার আরও কয়েকটি স্থানে রোববার ঈদুল ফিতর উদযাপনের খবর পাওয়া গেছে। এই সব এলাকায় নামাজ শেষে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তারা এক অপরের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ফলে ওই এলাকাগুলোতে ঈদের আমেজ বিরাজ করছে।

মন্তব্য