আকাশে উড়ল বিশ্বের বৃহত্তম ইলেকট্রিক বিমান

প্রজন্ম ডেস্ক

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সম্পূর্ণ ইলেকট্রিক বিমান প্রথমবারের মতো আকাশে উড়েছে। এর নির্মাতা কোম্পানি ম্যাগনি এক্স জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার বিমানটি ওয়াশিংটনের মোজেস লেকের উপরে ৩০ মিনিট ধরে আকাশে উড়েছে।

নির্মাতা কোম্পানিটি বিশ্বে সমাদৃত মাঝারি আকারের বিমান সেসনা গ্র্যান্ড ক্যারাভানের সঙ্গে ইলেকট্রিক ইঞ্জিন যুক্ত করেছে। আকাশে উড়ার পর নয়  সিটের বিমানটি ২,৫০০ ফুট উপরে উঠতে সক্ষম হয়। পরে ২৫ মিনিট ধরে আকাশে প্রদক্ষিণ করে নেমে আসে।

ম্যাগনি এক্স কোম্পানি নতুন এই বিমানের নাম দিয়েছে ইক্যারাভান। কোম্পানিটি আশা করছে আগামী বছর থেকেই ১০০ মাইল রেঞ্জের এ ধরনের বিমান বিক্রি করতে পারবে।

নির্মাতা কোম্পানিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রোই গানজারস্কি বলেছেন, প্রকৃতিতে কার্বন নিঃসরণ কমাতেই এ ধরনের ইলেকট্রিক চালিত বিমান প্রয়োজন। তিনি আরো বলেছেন, এ ধরনের বিমান জীবাশ্ম জ্বালানির চেয়ে ৪০-৭০ শতাংশ খরচ কমবে। গানজারস্কি আরো বলেন, আগামী ১৫ বছরের মধ্যে ১০০০ মাইল রেঞ্জের মধ্যে যাতায়াত করার জন্য ইলেকট্রিক বিমান তৈরি করা হবে, তবে এর জন্য ব্যাটারি টেকনোলজির উন্নতি হওয়া জরুরি।

ম্যাগনি এক্স কোম্পানি জানিয়েছে, ক্যারাভান নামের তাদের বিমানগুলো ১৯৯২ সাল থেকে মানুষ ও কার্গো বহন করার কাজটি করছে। গত কয়েক দশকে এসব বিমানে বেশ কিছু নতুনত্ব আনা হয়েছে। কোম্পানিটির মতে, ১০০ আসনের পুরোপুরি ইলেকট্রিকে চলা বিমান তৈরিও সম্ভব, তবে তার জন্য আরো কয়েক দশক সময় লাগবে।

এয়ারবাস, এমব্রায়ার, রোলস রয়েসের মতো কোম্পানিগুলোও ইলেকট্রিক চালিত বিমান তৈরিতে কাজ করছে। ম্যাগনি এক্স বিশ্বের প্রথম কোম্পানি হিসেবে ছোট ইবিভার সী প্লেনকে পুরোপুরি ইলেকট্রিকে চালানোর সফলতা অর্জন করে। এই সাফল্যের ছয় মাস পর কোম্পানিটি পুরোপুরি ইলেকট্রিক চালিত বিমান উড়ানোর সফলতা পেল।

মন্তব্য