অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার ধোনি অর্জন করেছে: কারস্টেন

প্রজন্ম ডেস্ক

মাহেন্দ্র সিং ধোনির অবসর ইস্যুতে ভারত ও ভারতের বাইরে থেকে নানা মত আসছে। কিংবদন্তি ও প্রাক্তন ক্রিকেটাররা নিজের মতো করে মত প্রকাশ করে আসছেন। কেউ মনে করছেন ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের উচিত এখনই ক্রিকেটকে গুডবাই বলার। কেউ মনে করছেন ধোনির এখনও ক্রিকেটকে দেওয়ার অনেক কিছু আছে।

ধোনির ক্রিকেটিং ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় অর্জন ওয়ানডে বিশ্বকাপ। সেই বিশ্বকাপ জয়ের পথে ধোনি সঙ্গী হিসেবে পেয়েছিলেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার গ্যারি কারস্টেনকে। বিশ্বকাপ জয়ী এ কোচ এবার ধোনির অবসর নিয়ে মুখ খুললেন। সাফ জানালেন, অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার ধোনি অর্জন করেছে। ক্রিকেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত ধোনিরই নেওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

সম্প্রতি টুইটারে হ্যাশট্যাগ ‘ধোনি অবসর’ প্রচলন শুরু হয়েছে। বিষয়টি মোটেও পছন্দ হয়নি ধোনির স্ত্রী সাক্ষী সিংয়ের। পরবর্তীতে সাক্ষী টুইট করেন,‘লক ডাউনে থাকতে থাকতে মানুষের মাথা খারাপ হয়ে গেছে।’ যদিও নিজের পোস্ট বেশিক্ষণ রাখতে পারেননি সাক্ষী। ভারতীয় দল থেকে ধোনি এখন অনেক দূরে। ২০১৯ সেমিফাইনালের পর ধোনির মাঠে ফেরা হয়নি। তবে ভক্তরা বিশ্বাস করেন ধোনি ফিরতে পারবে স্বরূপেই। তবে ভারতীয় দলে দুই উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান লোকেশ রাহুল ও রিশাভ পান্ত থাকায় কাজটা খুব কঠিন বলে মন্তব্য করছেন রবি শাস্ত্রী। ভারতের কোচ জানিয়েছিলেন, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে প্রমাণ করে ধোনিকে দলে জায়গা করে নিতে হবে। যদিও আইপিএল এখন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত। তাহলে ধোনির কি আর ফেরা হবে না?

টাইমস অব ইন্ডিয়াকে কারস্টেন বলেছেন,‘অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার ধোনি অর্জন করেছে। সেই সময়টা কখন সেটা নির্ধারণ করার অধিকার অন্য কারো নেই।’ নিজের পুরনো শিষ্যর প্রশংসা করে কারস্টেন আরও বলেন,‘ধোনি অবিশ্বাস্য ক্রিকেটার। তার বুদ্ধি, ধৈর্যশীলতা, শক্তি, খেলা-পাগল মনোভাব, গতি এবং ম্যাচ বিজয়ী হওয়ার তাড়না তাকে অন্যদের থেকে পৃথক করেছে। আমি বিশ্বাস করি আধুনিক যুগের সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন সে।’

কারস্টেনের অধীনে ভারত টেস্ট ক্রিকেটে নম্বর ওয়ান পজিশনে উঠেছে। জিতেছে ২০১১ বিশ্বকাপ। এশিয়ার দলটির দায়িত্ব পালন করে দারুণ উৎফুল্ল সাবেক এ ক্রিকেটার।

‘আমি ভারতীয় দলকে কোচিং করিয়ে দারুণ তৃপ্তি পেয়েছি। এটা আমার জীবনে গর্ব করার মতো অধ্যায়। খেলোয়াড় এবং অন্যান্য স্টাফদের সঙ্গে আমাদের সফরটি ছিল দারুণ। বিশেষ করে বিশ্বকাপে আমাদের ওপর অনেক প্রত্যাশার চাপ ছিল। আমরা ভালো ক্রিকেট উপহার দিয়ে সেই যাত্রায় সফল হয়েছি।’

মন্তব্য