‘টিকটক’ করে ক্লাবের চুক্তি হারালো ইতালিয়ান ফুটবলার

প্রজন্ম ডেস্ক

বর্তমান সময়ের বহুল আলোচিত এক বিনোদনের মাধ্যম ‘টিকটক’। এই মাধ্যমে বিভিন্ন কথা বা গানের সঙ্গে ভিডিও করে বিনোদন ছড়িয়ে দেওয়া হয়। তবে এই টিকটকে ভিডিও করে ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি হারালেন এক ইতালিয়ান ফুটবলার।

মিরকো আনতোনুচ্চির অপরাধ, ক্লাবের পরাজয় শোক কাটিয়ে ওঠার আগে বান্ধবীর সঙ্গে টিকটকে ভিডিও করেছেন তিনি।

ইতালিয়ান ক্লাব রোমার ফুটবলার মিরকো চলতি মৌসুমে ধারে খেলতে যান পর্তুগিজ ক্লাব ভিতোরিয়াতে। গত সপ্তাহের শনিবার পর্তুগিজ প্রিমেইরা লিগের ম্যাচে ভোয়াবিস্তার কাছে ৩-১ গোলে হেরে যায় মিরকোর ক্লাব ভিতোরিয়া। ক্লাবের সবাই যখন হারের কারণ খুঁজতে ব্যর্থ। তখন বান্ধবীর সঙ্গে টিকটক ভিডিও বানিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছেন মিরকো।

আর বিষয়টি ভালো চোখে নেয়নি ক্লাব ভিতোরিয়া। তারা শাস্তিস্বরুপ ২১ বছরের এই ফুটবলারকে চুক্তি থেকে বাদ দিয়েছেন। পাঠিয়ে দিয়েছেন রোমায়। এমনকি রোমাকেও জানিয়ে দিয়েছেন, এমন খেলোয়াড় চাই না তাদের। ফলে পুরো মৌসুম না খেলে আবারও ইতালিতে পাড়ি জমালেন মিরকো আনতোনুচ্ছি।

ইতালিয়ান এই ফুটবলারকে নিয়ে ভিতোরিয়া কোচ হুলিও ভেলাজকুয়েজ বলেন, ‘মিরকো আনতোনুচ্চি এখন থেকে আর ভিতোরিয়ার খেলোয়াড় নয়। তার মূল ক্লাব রোমাকেও জানিয়ে দেয়া হয়েছে যে আমাদের মধ্যকার চুক্তি শেষ। আমরা এমন কোন খেলোয়াড়ের ওপর আস্থা রাখি না যে আমাদের সমর্থক এবং ক্লাবের ইতিহাসের প্রতি সম্মান দেখায় না। এই ক্লাবের জার্সি পরা মানে পুরো ২৪ ঘণ্টা ক্লাবের প্রতি দায়বদ্ধ থাকা।’

শুধু টিকটক ভিডিও করার অপরাধে কোনো খেলোয়াড়ের সঙ্গে চুক্তি বাদ দেওয়া অস্বাভাবিক নয়? এমন প্রশ্নের উত্তরে মিরকোকে বাদ দেওয়া নিয়ে ভিতোরিয়ার কোচ আরও যোগ করেন, ‘এখানে জটিলতার কিছু নেই। পরিস্থিতিটা খুবই সহজ। ক্লাব, ম্যানেজমেন্ট, টেকনিক্যাল টিম এবং অন্যান্য স্টাফরা একমত হয়েছে যে, একজন ধারে আসা খেলোয়াড়ের কাছ থেকে আমরা যেমনটা চাই, ঠিক তেমনটা পাইনি। আমাদের সমর্থকদেরও এমনটা প্রাপ্য নয়।’

এই ঘটনার পর ক্ষমা চেয়ে এক বিবৃতিতে মিরকো বলেন, ‘আমি নিজের ভুল বুঝতে পারছি। ক্লাব, সমর্থক, ম্যানেজার এবং আমার সতীর্থ যারা দুঃখ পেয়েছেন, তাদের সবার কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সরে যাচ্ছি আমি। ভিতোরিয়ার জয় হোক।’

মন্তব্য