সোনার বাংলা গড়তে মাদক ছেড়ে খেলাধুলায় মনোনিবেশ করতে হবে- আফিল

সোনার বাংলা গড়তে মাদক ছেড়ে খেলাধুলায় মনোনিবেশ করতে হবে- আফিল

শার্শা প্রতিনিধি

যশোর-১ (শার্শা ) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ শেখ আফিল উদ্দিন বলেছেন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হলে মাদক ছেড়ে খেলাধুলায় মনোনিবেশ করতে হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল বাংলার মানুষ কেউ না খেয়ে মারা যাবেনা।
এদেশের মানুষ মাছে ভাতে সুখী সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে বিশে^র বুকে মাথা উঁচু করে দাড়াবে। কিন্তু এক শ্রেণীর খারাপ মানুষের দল তৎকালিন সময়ে পাকিস্তানিদের পেতাত্মা হয়ে এদেশের মানুষের সুখের অধিকার হরণ করে কেবল নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য আমাদেরকে অর্ধাহারে অনাহারে জীবন জীবিকার স্বপ্ন এঁকে পরাধীন রাখার চেষ্টা করেছিল।

শুক্রবার বিকেলে শার্শা উপজেলার শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট (অনুর্ধ্ব-১৭)’র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে একথা বলেন তিনি।
শার্শা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ফুটবল টুর্ণামেন্টে শেখ আফিল উদ্দিন এমপি আরো বলেন, সেদিন পাকিস্তানি পেতাত্মারা তাদের সহায় হয়েও এদেশকে পরাধীন রাখতে পারেনি। মহান সৃষ্টিকর্তার অশেষ কৃপায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাঁর সুক্ষ বুদ্ধি সম্পন্নতার মাধ্যমে বলিষ্ঠ কন্ঠে বাংলার মানুষকে ডাক দিয়েছিলেন। বাংলার দামাল ছেলে, আবাল-বৃদ্ধ বণিতারা সেদিন বঙ্গবন্ধুর ডাকে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন দেশকে স্বাধীন করার জন্য। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন স্বার্থক হয়েছিল।

আমরা পরাধীনতা থেকে বেরিয়ে অর্জন করেছিলাম লাল সবুজের পতাকা। যা সম্ভব হয়েছিল আমরা মাদকমুক্ত ছিলাম বলে। এ সময় সাংসদ শেখ আফিল উদ্দিন আরো বলেন, মাদক খুব মারাত্বক ব্যধি। সেকারণে ৭১’র সেই ঘাতক দল বাংলাদেশের মানুষকে পঙ্গু করার জন্য এদেশে মাদক প্রবেশ করিয়েছে। তারা চাইছে এদেশকে ধ্বংস করতে হলে এদেশের উঠতি বয়সের ছেলে মেয়েদের মাদকের ছোবল দিয়ে ধ্বংস করতে হবে। যা বুঝতে পেরে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে তাঁর সুযোগ্য কন্যা এদেশ থেকে চিরতরে মাদক ধ্বংসের জন্য নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তাই এখনই সময় মাদক ছেড়ে খেলাধূলা এবং যার যা কর্ম সেখানে মনোনিবেশ করা। তাহলে অচিরেই আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন স্বার্থক করতে পারব।
এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান

মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ নুরুজ্জামান, যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, অহিদুজ্জামান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান চৌধুরী, শার্শা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সোয়ারাব হোসেন, বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ বজলুর রহমান, উলাশী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আয়নাল হক, বাগ আঁচড়া ইউপি চেয়ারম্যান ইলিয়াছ কবির বকুল, কায়বা ইউপি চেয়ারম্যান হাসান ফিরোজ আহমেদ টিংকু, নিজামপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আযাদ, ডিহি ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন আলী, পুটখালী ইউপি চেয়ারম্যান হাদিউজ্জামানসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও সূধীবৃন্দ।

মন্তব্য