গাজীপুরে ধর্ষণের বিচারের নামে আবার ধর্ষণ

প্রজন্ম ডেস্ক

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় ধর্ষণের বিচারের প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক তরুণীকে (২০) আবার ধর্ষণের করার অভিযোগ উঠেছে কলিম উদ্দিন (৪০) নামের এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যের বিরুদ্ধে। শনিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে এ ঘটনায় শ্রীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় অভিযুক্তরা হলেন- শ্রীপুর উপজেলার আব্দুল খালেকের ছেলে পারভেজ আহম্মেদ (২৮) ও কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য কলিম উদ্দিন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ওই তরুণী স্থানীয় একটি কারখানার পোশাক শ্রমিক। অভিযুক্ত পারভেজ আহম্মেদ একজন পিকআপচালক। তার গাড়িতে যাতায়াতের সুবাদে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সম্পর্কের জেরে ১৮ জুলাই রাতে পারভেজ তরুণীকে তার বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান। পরে ইউপি সদস্য কলিম উদ্দিন ওই তরুণীকে নিয়ে ১৯ জুলাই রাত ৮টার দিকে ওই বাড়িতে যান। সেখানে তার প্রেমিক পারভেজের সঙ্গে বিয়ের বন্দোবস্ত করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে মোটরসাইকেলে করে তার বাড়ির উদ্দেশে রওয়ানা হন।

পথিমধ্যে রাত আনুমানিক ১০টার দিকে শালবনের ভেতরে নিয়ে কলিম উদ্দিন ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে ফেলে যান। সেখান থেকে স্বজনেরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করে। শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুজ্জামান জানান, এ ঘটনায় শনিবার মামলা হয়েছে। প্রধান অভিযুক্ত পারভেজ আহম্মেদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ভুক্তভোগীর শারীরিক পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য