ফেসবুকে প্রেম, ট্রেনের কেবিনে ধর্ষণ

প্রজন্ম ডেস্ক

আন্তঃনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনে চট্টগ্রাম থেকে হবিগঞ্জ ফেরার পথে এক নারীকে (৩০) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত যুবক সাঈদ আরিফকে (২৯) আটক করেছে পুলিশ। ওই যুবতীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার যুবতী বানিয়াচং উপজেলার জাতুকর্ণপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

আটককৃত যুবক ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার আনোয়ার আজমের ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম বিএসআরএম স্টিল কোম্পানির টেকনিশিয়ান ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

ওই নারীর পরিবারের অভিযোগ, দীর্ঘ ৫ বছর আগে ফেসবুকে দু’জনের পরিচয় হয়। এরপর থেকে তাদের মধ্যে প্রেম চলতে থাকে। মঙ্গলবার সকালে ওই যুবতী চট্টগ্রাম থেকে হবিগঞ্জের উদ্দেশে আন্তঃনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনে ওঠেন।

বিষয়টি ওই নারী আগেই প্রেমিক সাঈদ আরিফকে জানিয়ে রাখেন। এ সময় আরিফ প্রেমিকাকে না জানিয়েই ফেনী থেকে শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছার টিকিট কেটে রাখেন। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ট্রেনটি ফেনী স্টেশনে পৌঁছলে আরিফ ট্রেনে উঠেন।

এ সময় তিনি প্রেমিকার কাছে এসে ফুসলিয়ে পার্শ্ববর্তী কেবিনে নিয়ে যান। সেখানে নিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করেন আরিফ। এক পর্যায়ে ওই নারী অসুস্থ হয়ে পড়লে আরিফ পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ওই নারী আরিফকে পালাতে বাধা দেন।

এ সময় নারীর অসুস্থতার সুযোগ নিয়ে আবারও ধর্ষণ করেন আরিফ। পরে ট্রেনটি শায়েস্তাগঞ্জ জংশনে পৌঁছামাত্র ওই নারী চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন কেবিনের ভেতরে প্রবেশ করে ওই নারীকে উদ্ধার করে এবং ধর্ষক আরিফকে আটক করে। পরে ওই নারীকে অসুস্থ অবস্থায় সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সদর থানার ওসি মো. মাসুক আলী জানান, ধর্ষণের শিকার নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আরিফকে আটক করা হয়েছে। মামলা দায়ের করলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য