ধর্ষককে ঝাপটে ধরল কিশোরী, খুঁটিতে বেঁধে রাখল গ্রামবাসী

প্রজন্ম ডেস্ক

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে (১৫) ধর্ষণের পর পালিয়ে যাওয়ার সময় ধর্ষককে ঝাপটে ধরে চিৎকার দিল কিশোরী। তার চিৎকারে এগিয়ে এসে অভিযুক্ত ইমরানকে (২৫) আটক করে গ্রামবাসী।

ইমরান উপজেলার শেরপুর ইউনিয়নের পাঁচরুখি গ্রামের মৃত সুনু মিয়ার ছেলে। বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ইমরানকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে বুধবার (০৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ইমরানকে গ্রেফতারের পর রাতে নান্দাইল থানায় মামলা করে কিশোরী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নান্দাইল থানা পুলিশের ওসি মিজানুর রহমান বলেন, উপজেলার শেরপুর ইউনিয়নে ইমরানের সঙ্গে পাশের ইউনিয়নের এক কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মঙ্গলবার (০৮ সেপ্টরম্বর) রাতে কিশোরীর বাড়িতে যায় ইমরান। এ সময় বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়। ধর্ষণের পর ইমরান বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে চলে যেতে চাইলে ইমরানকে ঝাপটে ধরে চিৎকার দেয় কিশোরী। তার চিৎকারে গ্রামবাসী জড়ো হয়ে ইমরানকে আটক করে বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে রাখে। বুধবার গ্রাম্য সালিশে বিষয়টি মীমাংসা হবে খবর পেয়ে ইমরানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ওসি মিজানুর রহমান আরও বলেন, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কিশোরীকে ময়মননিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষক ইসরানকে দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য