প্রবাসীর স্ত্রীর গোপন ভিডিও ধারণ করে চাঁদা দাবি

প্রবাসীর স্ত্রীর গোপন ভিডিও ধারণ করে চাঁদা দাবি

প্রজন্ম ডেস্ক

এক প্রবাসীর স্ত্রীর গোপন ভিডিও ধারণ করে ব্লাকমেইল করে ৫০ লাখ টাকা দাবি করার অভিযোগে পার্থ কীর্তনীয়া নামের এক পল্লী চিকিৎসককে আটক করেছে র‌্যাব। পার্থ কীর্তনীয়া মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার বৌলগ্রামের সুভাষ কীর্তনীয়ার ছেলে।বুধবার (১০ এপ্রিল) বিকেলে তাকে আটক করা হয়।

আটক ডাক্তার স্থানীয় ইউএস মডেল (প্রা.) হাসপাতালের ডাক্তার বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে মাদারীপুর র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক রইছ উদ্দিন জানান, গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানাধীন জনৈক গৃহবধূ আনুমানিক ১ বছর পূর্বে তার শিশু সন্তানকে টেকেরহাটে অবস্থিত জননী ডি ল্যাবে ডাক্তার পার্থ কীর্তনীয়াকে দেখাতে গেলে কৌশলে গৃহবধূর ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন নম্বর সংগ্রহ করে।

মালয়েশিয়া প্রবাসীর ওই স্ত্রীকে ওই মোবাইল ফোনে বিভিন্ন সময়ে বিরক্ত করে এবং অনলাইন যোগাযোগ মাধ্যম ইমোতে বিভিন্ন ধরনের

অশ্লীল ও আপত্তিকর ছবি পাঠান।মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে গৃহবধূর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূকে জোরপূর্বক দৈহিক মিলনে বাধ্য করে। প্রবাসীর স্ত্রীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে কয়েক দফায় প্রায় পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। আনুমানিক ২/৩ মাস পূর্বে প্রায় ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করলে ভিকটিম আইনগত সহায়তা চেয়ে র‌্যাব-৮ এর কাছে আবেদন করে।

এই আবেদনের ভিত্তিতে মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানাধীন টেকেরহাটে অবস্থিত ইউএস মডেল হাসপাতাল থেকে অভিযুক্ত ডা.পার্থ কিত্তনিয়াকে (২৭) আটক করে। আটক আসামি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে।সবশেষ তাকে মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য