যশোর সিটি প্লাজায় আবারো লটারীর ফাঁদ, দ্বিগুন দামে পণ্য বিক্রির অভিযোগ !

যশোর সিটি প্লাজায় আবারো লটারীর ফাঁদ, দ্বিগুন দামে পণ্য বিক্রির অভিযোগ !

প্রজন্ম রিপোর্ট

ঈদের কেনাকাটায় বড় বড় শপিং মল ও দোকানগুলোর লোভনীয় অফার আর দামের ফাঁদে অসহায় হয়ে পড়েছে সাধারন ক্রেতা। বাজার মূল্য থেকে প্রায় দ্বিগুন মূল্য হাকিয়ে বসেছে দোকানীরা। লটারীসহ নানা অফারে ফাঁদে ফেলে হাতিয়ে নিচ্ছেন মোটা অংকের মুনাফা। যশোর শহরের বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, শহরের বড় বড় কয়েকটি মার্কেটের দোকান গুলোতে এবারে ঈদে নতুন কাপড় কেনার তেমন কোন ভীড় নেই।

ঈদের মাত্র কয়েকদিন বাকি থাকলেও কেনাকাটায় ক্রেতাদের তেমন একটা দেখা মিলছে না এখনও পর্যন্ত। মূলত ধানের দাম ঈদ বাজারে বড় একটি প্রভাব ফেলেছে বলে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। যশোর অধিকাংশ কৃষক পরিবারই এবারের ঈদ সাদামাঠা ভাবে পার করতে যাচ্ছেন। এদিকে ক্রেতা কম থাকায় লটারীর প্রলোভন দেখিয়ে ক্রেতা আর্কষণ করতে দেখা যাচ্ছে শহরের সিটি প্লাজা শপিং মলে।

এর আগেও লটারীর নামে ক্রেতাদের সাথে প্রতারনা করে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবসায়ীরা। পরে সেটির একটি ভিডিও ফুটেজ স্যোসাল মিডিয়াতে ভাইরাল হলে কর্তৃপক্ষের লটারীর টাকা দিয়ে কম্বল কিনে গরীবদের মাঝে বিতরনের ঘোষনা দেন। কিন্তু বিতরন করেছেন কিনা তা আর পরে জানা যায়নি। এবারও লটারীর ঘোষনা দিয়ে ক্রেতা আকর্ষণ করছেন তারা। তবে পণ্যের দাম সাধারন ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে বলে জানা গেছে।

ইতিমধ্যে এ নিয়ে স্যোসাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে সিটি প্লাজা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মণিরামপুরের এক স্কুল শিক্ষক বলেন, পরিবারের সদস্যদের নিয়ে গিয়েছিলাম সিটি প্লাজায়, তবে দাম অনেক বেশী দেখে পরে একই ব্রান্ডের থ্রীপিচ এইচএমএম রোড থেকে কিনে এনেছি প্রায় অর্ধেক দামে। শরিফুল নামের এক ছাত্র জানান, বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে সে তার বন্ধু রবিউল ও অহিদুলের সাথে রবিউলের জন্য সিটি প্লাজা থেকে একটি জিন্স প্যান্ট কিনেছে ১২’শ ৫০ টাকা দিয়ে।

পরে তারা কালেক্টরেট মার্কেটে গিয়ে জানতে পারে একই ব্রান্ডের প্যান্টের মূল্য মাত্র ৭’শ বিশ টাকা।এভাবে প্রতারনা করা হচ্ছে ক্রেতাদের সাথে। শুধু সিটি প্লাজা নয়, একই রকমভাবে অধিক লাভের আশায় এক শ্রেণীর মুনাফালোভী অসাধু ব্যবসায়ীরা দ্বিগুন দাম হাকিয়ে বসে আছে।

অনেকে আবার স্বল্প লাভ বোঝাতে এক দামে বিক্রি করছেন। এভাবেই ক্রেতারা প্রতারিত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন সচেতন মহল।

মন্তব্য