রূপদিয়া এলাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে বখাটেদের উৎপাত, প্রশাসনের দৃষ্ঠি আকর্ষণ

Rupdia

মাহামুদুল, রূপদিয়া (যশোর) প্রতিনিধি

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে বখাটেদের উৎপাত, অভিভাবক উৎকন্ঠায়, প্রশাসনের দৃষ্ঠি আকর্ষণ। যশোর সদর উপজেলার রূপদিয়া বাজারের চারিপাশ ঘিরে প্রায় ৭-৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। হাজার হাজার ছেলে মেয়ে বিভিন্ন গ্রাম থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখা পড়া করার জন্য আসে। এদের নিরাপত্তা দেওয়া দায়িত্ব এই সমাজের প্রত্যেকটি মানুষের। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘুরে একটি প্রতিবেদনে দেখা যায়- স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার সামনে দোকানে এক শ্রেণির বখাটেদের আড্ডা। এদের মাথার চুলের কাটিং এবং পোশাকের যে ডিজাইন তা দেখলে সভ্য সমাজের যে কোন মানুষের চোখ ছাঁনাবড়া হবে। মাথার চুলের চারিপাশ শকুনের বাসা ও ভিখারী বেশের ছেড়া প্রকৃতির হাফ প্যান্ট ও শার্ট। প্রতিষ্ঠানের সামনে দোকানে আড্ডা মেয়েদের দেখলে বিভিন্ন অংগ ভঙ্গি করা বাজে শব্দ উচ্চারণ করা এদের কাজ। সকালে স্কুল, কলেজে মেয়েরা আসে আর যখন ছুটি হয় তখন ভাড়ায় চালিত মটরসাইকেল ব্যবহার করে গেটের সামনে দ্রুত গতিতে চালিয়ে যাওয়া এমনকি মেয়েদের হাত ধরে টানানি করার অভিযোগও আছে এই বখাটেদের বিরুদ্ধে। যার কারণে এলাকার অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের স্কুল, কলেজে পাঠিয়ে দারুন উৎকন্ঠার মধ্যে থাকে। অভিভাবকদের অভিযোগ বখাটেরা মাদক সেবনের সাথে জড়িত আর ওই দোকান গুলোতে মাদক বিক্রয় হয় বলে সাংবাদিকদের জানান। এছাড়া মটরসাইকেল ভাড়াটিয়াদের বিরুদ্ধে মাদক পাচার ও বেচাকেনার হাত আছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। সচেতন মহল মনে করেন সমস্ত মাদক সেবনকারীরাই ঘটাচ্ছে এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণ, ইফটিজিং সহ বিভিন্ন অপকর্ম। স্থানীয় প্রশাসনের চোখে কালো পর্দা, মাসোহারা উত্তোলনের কাজে ব্যস্ত। এব্যপারে যশোর জেলা প্রশাসক/ প্রশাসন এবং পুলিশ সুপারের কাছে বখাটেদের আড্ডা ও এলাকার মাদক নির্মুল করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ করছে এলাকার সুধী সমাজ।

মন্তব্য