যশোর বিআরটিএ অফিসে উপচেপড়া ভিড়

প্রজন্ম রিপোর্ট

সড়ক পরিবহণ আইন কার্যকর করার পর ব্যাপক সাড়া পড়েছে সব ধরনের গাড়ির মাইকদের মাঝে। গাড়ির কাগজপত্র নবায়ন ও নতুন করে কাগজ করতে মালিকরা ভিড় করেছেন বিআরটিএ অফিসে।

বিআরটিএ কর্মকর্তা বলছেন, নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পর বিভিন্ন মাধ্যমে গত বিশ বছর আগের গাড়িও কাগজ করার জন্য আমার কাছে আসছেন। গাড়ির কাগজপত্র নবায়ন, রেজিস্ট্রেশন ও ফিটনেসসহ মালিকদের সেবা দিতে সকাল সাড়ে নয়টা থেকে সাড়ে তিনটা পর্যন্ত সেবা দিয়ে যাচ্ছি আমরা।

যশোর বিআরটিএ অফিসে সকাল থেকে ছিল উপচেপড়া ভিড়। নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পর সচেতন নাগরিক তাদের দায়িত্ববোধ থেকে গাড়ির  কাগজপত্র নবায়ন করছেন। অন্যান্য দিনের তুলনায় সকাল থেকে ছিল দীর্ঘ লাইন। যা সড়ক পরিবহণ আইন ২০১৮ কার্যকর হওয়ার পর তা বেড়েই চলেছে।

যশোরের মণিরামপুর উপজেলার মিজানুর বলেন, আমি এক বছর আাগে মোটরসাইকেল কিনেছি। কিন্তু গাড়ির কাগজপত্র করিনি।

যশোর সদর উপজেলা ফতেপুর থেকে এসেছেন আলমগীর হোসেন। গাড়ি চালানোর কোন কাগজপত্র নেই তার। গাড়ি কিনেছেন দু‘বছর, নেই কাগজপত্র ও ড্রাইভিং লাইসেন্স। নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পর গাড়ির কাগজ ও ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে এসিছেন বলে জানান তিনি।

যশোর বাঘারপাড়া উপজেলা মহিদুল ইসলাম বলেন, আমার গাড়িটি যখন কিনেছিলাম তখন আমার পিতার নামে কিনেছিলাম। কিন্তু সড়কের নতুন আইনে যার কাছে গাড়ি থাকবে তার নামে গাড়ির কাগজপত্র থাকতে হবে এই কারণে নামপত্তন করতে এসেছি। সরকার যে আইন করেছে তাতে গাড়ির কাগজপত্র ছাড়া গাড়ি বাহির করা যাচ্ছে না।

মোটরযান পরিদর্শক হুমায়ন কবির বলেন, নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পর মালিকরা আমাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোনে, ফেসবুকে ও বিভিন্ন মাধ্যমে খোঁজ খবর নিচ্ছে । তাদের অনেক দিনের গাড়ির কাগজপত্র কিভাবে করবে। আমাদের এখন কাজের চাপ অনেক বেশি। মালিকরা যাতে জটিলতায় না আটকান সেজন্য আমরা বিকেল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত কাগজ জমা নিচ্ছি।

যশোর বিআরটিএ সহকারী পরিচালক কাজী  মোরছালিন বলেন, সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর হওয়ার পর সাধারণ মানুষের মাঝে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। নতুন আইন কার্যকর হওয়ার পর মোটরসাইকেলে তিন জন থাকলেও তাদের হেলমেট থাকে। এটা একটা ইতিবাচক দিক যে সকলে সচেতন হচ্ছে। সরকার যেটা চাইছে সেটা হয়েছে। সরকার যে নিয়ম করেছে এই মোটা অংকের জরিমানা থাকার কারণে ভয়ে সকলে সচেতন হচ্ছে।

মন্তব্য