আশাশুনিতে এক ছাত্রীসহ পরিবারের ৪ জনকে পিটিয়ে জখম,ভাঙচুর,লুটপাট,হুমকি

আশাশুনিতে এক ছাত্রীসহ পরিবারের ৪ জনকে পিটিয়ে জখম,ভাঙচুর,লুটপাট,হুমকি

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা

জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে এক কলেজ ছাত্রীসহ তার পরিবারের চার সদস্যকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার রাউতাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে থানা পুলিশ করলে বা হাসপাতালে ভর্তি হলে অস্ত্র ও গুলি দিয়ে জেলে পাঠানোর হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সন্ত্রাসীদের নতুন করে হামলার আশঙ্কায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে ওই সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্যরা।

আহতরা হলেন. রাউতাড়া গ্রামের গোবিন্দ মণ্ডলের ছেলে গ্রাম ডাক্তার বিনয় কৃষ্ণ মণ্ডল (৫৬), তার স্ত্রী সুমিত্রা মণ্ডল (৪৬), তার ছেলে বিভুতিভূষণ মণ্ডল (২৭) ও তার মেয়ে বড়দল আফতাবউদ্দিন ডিগ্রী কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ধৃতি রানী মণ্ডল (১৯)।
গ্রাম ডাক্তার বিনয় কৃষ্ণ মণ্ডল জানান, তিনি আশাশুনি উপজেলার বড়দল ইউনিয়নের ফকরাবাদ বুড়িয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ২৭ বছর আগে তিনি খাজরা ইউনিয়নের রাউতাড়া গ্রামে জমি কিনে শ্বশুর বাড়ির পাশে বসবাস শুরু করেন।

২০০৮ সালের ৯ এপ্রিল একই গ্রামের পূর্ণচন্দ্র মণ্ডলের কাছ থেকে ১০৪৭ নং রেজিষ্ট্রি কোবালা মূলে রাউতাড়া মৌজার ১২ শতক জমি কেনেন তার দাদা শ্বশুর মনোরঞ্জন মণ্ডল। ওই বছরের ২৪ এপ্রিল ১২২৪ নং রেজিষ্ট্রি কোবালা মুলে পূর্ণ চন্দ্র মণ্ডলের কাছ থেকে নয় শতক জমি কিনেছেন বলে একই গ্রামের কওছার ঢালীর ছেলে সালাম ঢালী দাবি করে আসছে। দলিল মুলে তার দাদা শ্বশুরের জমি জবরদখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছিল সালাম ও তার স্বজনরা।

এ নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হওয়ায় সালাম ঢালীসহ ২১ জনকে বিবাদী করে আশাশুনি সহকারি জজ আদালতে শর্ত সাব্যস্ত দখল কায়েম এর জন্য দেওয়ানী ৫/১০ নং মামলা করেন মনোরঞ্জন মণ্ডল। মামলায় চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চাওয়া

মন্তব্য