বিসিসিআই’র পূর্ণকালীন প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন গাঙ্গুলী!

প্রজন্ম ডেস্ক

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকেই আলোচনায় সৌরভ গাঙ্গুলী। তবে প্রথম থেকেই প্রশ্ন উঠেছে তার ১০ মাসের মেয়াদকাল খুবই কম। কিন্তু এর মধ্যেই গুঞ্জন উঠেছে ১০ মাস নয়, পূর্ণ তিন বছরই প্রেসিডেন্টের পদে থাকতে পারেন সৌরভ।

বিসিসিআইয়ের আসছে বোর্ড সভাতেই সংবিধান সংশোধন করার উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানা যায়। আগামী এক ডিসেম্বর মুম্বাইয়ে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সাধারণ সভা। সেখানেই হয়তো পরিষ্কার হয়ে যাবে সৌরভের মেয়াদ কতদিনের। অবশ্য বোর্ড একটি সূত্র থেকে জানা যায়, আগামী তিন বছর সৌরভকে বোর্ড প্রেসিডেন্ট ও জয় শাহকে সেক্রেটারি পদে বহাল রাখার সুপারিশ করা হবে।

সৌরভ বোর্ড প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসে ইতোমধ্যেই একের পর এক দুর্দান্ত সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। ভারতসহ উপমহাদেশে প্রথমবার দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ চালু করছেন। যেখানে ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেন্সে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যকার সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টটি গোলাপি বল গড়াবে। তিনি আইপিএলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সূত্রটি জানায়, মুম্বাইয়ের সাধারণ সভার জন্য ভারতের সব রাজ্যের ক্রিকেট সংস্থার কর্মকর্তাদের উপস্থিত থাকার জন্য নোটিস দিয়েছেন জয় শাহ। সেই সভায় পুরোনো সংবিধান সংশোধন করে নতুন সংবিধান রচনা করা হবে বলে শোনা যাচ্ছে।

বোর্ডের নতুন সংবিধানে বলা হয়েছে, রাজ্য ক্রিকেট সংস্থা ও বোর্ড মিলিয়ে যে কোনো পদে টানা ছয় বছর থাকলে, পরেরবার আর বোর্ডের কোনো নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না। সৌরভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের সেক্রেটারি ও সভাপতি পদে পাঁচ বছরেরও বেশি সময় কাটিয়ে বিসিসিআইর প্রেসিডেন্ট হয়েছেন। তাই তিনি ১০ মাসের বেশি বোর্ড সভাপতি পদে থাকতে পারবেন না। একই নিয়মে সচিব জয় শাহকেও পদ ছাড়তে হবে আগামী জুলাইয়ে।

নিয়ম অনুযায়ী সংবিধান সংশোধনের জন্য তিন-চতুর্থাংশ সদস্যের সমর্থন লাগে। সেই সমর্থন নিতে হয়তো সৌরভ-জয় জুটির সমস্যা হবে না। তবে এজিএমে সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব গৃহীত হলেও, দেশটির সুপ্রিম কোর্টের চূড়ান্ত অনুমোদন লাগবে।

মন্তব্য