সাতক্ষীরায় চাঁদাবাজি করায় সময় দুই সাংবাদিক আটক

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরা শহরে একটি বেকারীতে চাঁদাবাজি করতে যেয়ে মামুন হোসেন (৩০) ও মাজাহারুল ইসলাম (২৮) নামে দুই সাংবাদিককে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় চাঁদাবাজ চক্রের প্রধান আব্দুল হাকিম ও তার আরেক সহযোগি পালিয়ে যায়।

মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার সময় সাতক্ষীরা শহরের ইটাগাছায় অবস্থিত শাহিনুর বেকারিতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদেরকে আটক করে।

আটককৃতরা হলেন, বাংলাদেশ সমাচারের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি শহরের মুন্সিপাড়া গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে মামুন হোসেন ও স্থানীয় দৈনিক সুপ্রভাত পত্রিকার প্রতিনিধি বাঁকাল গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে মাজহারুল ইসলাম। এ সময় পুলিশের উপিিস্থতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় চাঁদাবাজ চক্রের প্রধান মুনজিতপুর গ্রামের মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে আব্দুল হাকিম ও তার সহযোগি আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা গ্রামের আবুল কালাম সরদারের  ছেলে জাহিদুর রহমান পলাশ।

শাহিনুর বেকারির মালিক আব্দুল খালেক জানান, সোমবার তার বেকারীতে চাঁদাবাজি করতে আসে হাকিমের নেতৃত্বে ৫/৭ জনের একটি গ্রুপ। তারা বেকারীতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরি হচ্ছে বলে হুমকি ধামকি দিতে থাকে।

তারা ২০ হাজার চাঁদা দাবী করে। তা না হলে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা করা হবে বলে হুমকি দেয়। আমি তাদেরকে দুই হাজার টাকা দেই এবং মঙ্গলবারে আসতে বলি। চাঁদাবাজ চক্রটি মঙ্গলবার আবার আসলে আমি পুলিশ সুপারের কাছে মোবাইলে ঘটনাটি বলি। পুলিশ সুপার সঙ্গে সঙ্গে সদর থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশকে পাঠিয়ে দুইজনকে আটক করে। বাকী দুইজন পালিয়ে যায়। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বেকারিতে চাঁদাবাজি করায় সময় হাতেনাতে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। দুইজন পালিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন সাতক্ষীরা শহরের এইসব ভুয়া সাংবাদিকদের জন্য সাধারন মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। যে চক্র ধরা পড়েছে তার প্রধান আব্দুল হাকিম। তাকে ধরার অভিযান চলছে বলে তিনি জানান। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় বেকারী মালিক আব্দুল খালেক বাদি হয়ে আটককৃত দু’জনসহ চারজনের নামে  মঙ্গলবার থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মন্তব্য