ডায়াবেটিসে আক্রান্তের আগে সচেতন হওয়ার পরামর্শ

প্রজন্ম ডেস্ক

ডায়াবেটিসে একবার আক্রান্ত হলে সারা জীবন এই রোগ বয়ে বেড়াতে হয়। জীবনকে রাখতে হয় কঠোর শৃঙ্খলার মধ্যে। কিন্তু আগে থেকে একটু সচেতন হলে আক্রান্তের ঝুঁকি থাকে না। তাই আক্রান্ত হওয়ার আগে সবাইকে সচেতন হতে হবে। তাহলেই সুস্থ থাকা যাবে।

বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস উপলক্ষে রাজশাহীতে আয়োজিত এক গণমুখী সেমিনারে বিশেষজ্ঞরা এ সব কথা বলেছেন। শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজশাহী মেডিকেল কলেজের শহীদ ডা. কাইসার রহমান মিলনায়তনে এই সেমিনার হয়। রাজশাহীর ডায়াবেটিক কল্যাণ কেন্দ্র রোগীদের নিয়ে এর আয়োজন করে।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির রাজশাহী সিটি ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক শাহীন আক্তার রেনী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলী, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) জেলা সভাপতি ডা. চিন্ময় কান্তি দাস ও রামেক শিক্ষক সমিতির সভাপতি ডা. সানাউল হক।

ডায়াবেটিস রোগের নানা দিক তুলে ধরে বক্তব্য দেন রামেকের এন্ডোক্রোইনোলজি বিভাগের প্রধান ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ মাহবুব ও মেডিসিন বিভাগের রেজিস্ট্রার ডায়াবেটোলজিস্ট অ্যান্ড এন্ডোক্রাইনোলজিস্ট ডা. মোহাম্মদ মতিউর রহমান। তারা বলেন, ডায়াবেটিস থেকে মুক্ত থাকতে হলে সচেতনতার বিকল্প নেই। এ নিয়ে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে কাজ করতে হবে।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশসহ উন্নয়নশীল দেশে খুব দ্রুত নগরায়ন হচ্ছে। ফলে মানুষের কায়িক শ্রম ও ব্যায়াম কমে যাচ্ছে। এছাড়া খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন হচ্ছে। এসব কারণে মানুষের ওজন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর তাই আনুপাতিক হারে ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যাও বেড়ে যাচ্ছে। এসব ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার আগেই জানতে হবে কেন এই রোগ হয়। তারপর সেসব কারণ থেকে দূরে থাকতে হবে। সুশৃঙ্খল জীবনযাপন করলে এই রোগ হবে না। আর আক্রান্ত হলে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী শৃঙ্খলার মধ্যেই জীবনযাপন করতে হবে।

সচেতনতামূলক এই সেমিনার আয়োজনে সহযোগিতা করে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। এতে প্রতিষ্ঠানটির উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) একেএম রফিকও বক্তব্য দেন। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চিফ মেডিক্যাল অফিসার ডা. তবিবুর রহমান শেখ। পরিচালনায় ছিলেন রাজশাহীর ডায়াবেটিক কল্যাণ কেন্দ্রের পরিচালক ডা. এফএমএ জাহিদ।

মন্তব্য