‘গণমাধ্যমে দুর্নীতির তথ্য দেওয়ায়’ হামলার শিকার

প্রজন্ম ডেস্ক  

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলায় এক যুবককে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে একদল লোক।

রোববার সকালে উপজেলার লখপুর ইউনিয়নের জাড়িয়া মাইটকুমড়া এলাকায় এই হামলা হয় বলে ফকিরহাট থানার ওসি আ ন ম খায়রুল আনাম জানান।

হামলায় আহত ইসরাফিল শেখ (৩২) জাড়িয়া মাইটকুমড়া গ্রামের ছাত্তার শেখের ছেলে। স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ইসরাফিল শেখ বলেন, বাগেরহাটে চলমান খুলনা-মোংলা রেলওয়ে প্রকল্পের ভূমি অধিগ্রহণে নানা অনিয়ম, দূর্নীতির বিষয়ে তিনি গত শুক্রবার একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে তথ্য দিয়েছেন।

সরকার এই প্রকল্পে তার জমিও অধিগ্রহণ করে বলে ইসরাফিল বলেন।

তিনি অভিযোগ করেন, জমির ক্ষতিপূরণে টাকা প্রদানে স্থানীয় কিছু দালাল প্রশাসনের এক শ্রেণির কর্মচারীর সহযোগিতায় লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কথা জানিয়ে স্থানীয় প্রশাসনসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন ইসরাফিলসহ স্থানীয় জমিমালিকরা।

হামলার বিবরণ দিয়ে ইসরাফিল বলেন, “রোববার সকালে বাড়ি থেকে বেরিয়ে বাগেরহাট শহরে আসার পথে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার খোরশেদ আলমের বাড়ির সামনে ৫/৬ জনের একটি দল লাঠিসোটা নিয়ে আমার উপর হামলা চালায়।”

তার ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে গেলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায় বলে ইসরাফিল জানান।

তিনি বলেন, খুলনা-মোংলা রেলওয়ে প্রকল্পে সরকার জমি অধিগ্রহণে এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়। ওই জমি অধিগ্রহণের শুরুতে স্থানীয় জেলা প্রশাসনের কয়েকজন কর্মকর্তার যোগসাজসে বেশকিছু লোক ভূয়া জমি মালিক সেজে সরকারের মোট অংকের টাকা উত্তোলন করে নিয়েছে।

“তারা ভূয়া জমি মালিক সেজে রেলওয়ে প্রকল্পের কয়েক কোটি টাকা ইতিমধ্যে উত্তোলন করেছে; যার তথ্য প্রমাণ আমার হাতে রয়েছে।  সম্প্রীতি ওই অনিয়ম, দূর্নীতির তথ্য প্রমাণ তুলে ধরে স্থানীয় লোকজন বেসরকারি টেলিভিশনের অনুসন্ধানী তালাশকে সাক্ষাৎকার দেয়। আমি ওই তালাশ টিমকে সহযোগিতা করায় ক্ষুব্দ হয়ে আমার উপর এই হামলা চালিয়েছে।” 

ফকিরহাট থানার ওসি আ ন ম খায়রুল আনাম বলেন, হামলায় আহত ইসরাফিল শেখকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। হামলাকারীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় তাদের ধরা সম্ভব হয়নি। তাদের ধরতে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

আহত ইসরাফিল শেখ সুস্থ হয়ে ফিরে আসলে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া হবে বলে ওসি বলেন।

স্থানীয় আজিজুল হক এ হামলায় নেতৃত্ব দেন বলে ইসরাফিলের অভিযোগ।

তবে আজিজুল হক অভিযোগ অস্বীকার করে ইসরাফিলের বিরুদ্ধে হামলার পাল্টা অভিযোগ করেছেন।

তিনি বলেন, “আমার প্রতিবেশী ইসরাফিল শেখ সম্প্রতি আমার ছোট ভাইয়ের বউ নাসরিনের কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেছেন। ওই চাঁদার টাকা না দেওয়ায় তিনি নাসরিন ও ভাতিজা মিরাজের উপর হামলা করেছেন। তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।”

মন্তব্য