‘মুক্তি রাজপথে এটা বিবেচনায় নিচ্ছি না’

প্রজন্ম ডেস্ক  

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫তম জন্মদিন পালন করেছে দলটি।

দোয়া মিলাদ, ফ্রি মেডিক‌্যাল ক্যাম্প, দুস্থদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণসহ নানা আয়োজনে দিবসটি পালন করেছেন নেতা-কর্মীরা। দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় এবং দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে কোনো কেক কাটা হয়নি।

বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদল, যুবদলের আয়োজনে দোয়া মিলাদ হয়।  এছাড়া বিভিন্ন সংগঠন দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে তারেকের দীর্ঘায়ু কামনা করেন দলটির নেতা-কর্মীরা।

দোয়া মিলাদের আগে আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি প্যারোলে না জামিনে হবে তা নিয়ে নিজেরা দ্বন্দ্বে রয়েছি। কিন্তু নেত্রীর মুক্তি রাজপথে হয়- এই কথাটা বিবেচনায় নিচ্ছি না। শুধু দোয়া মাহফিল, মানববন্ধন আর প্যারোল ও জামিনের তর্ক-বিতর্কের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখছি।

তিনি বলেন, তাদের কাছ থেকে এই ধরনের আচরণ আশা করতে পারেন না খালেদা জিয়া।  খালেদা জিয়ার জন্য আন্দোলন করতে গিয়ে যদি লাখ লোক জেলে যাই- সেটিই হবে যথার্থ সম্মান প্রদর্শন করা, যদি রাজপথে গুলিতে মারা যাই সেটাই হবে জাতীয়তাবাদী শক্তির নেত্রী খালেদা জিয়ার প্রতি সর্বোচ্চ মর্যাদা প্রদর্শন করা।  তাই আসুন রাজপথ দখল করার প্রত্যয়ে সবাই সরব হই।

স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, একদিকে খালেদা জিয়া কারাবন্দি আর অন্যদিকে সারা দেশে মানুষ একটা খোলা জেলে বন্দি আছি।  যুবদল নেতা-কর্মীদের আরও সক্রিয় ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানান তিনি।

যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নিরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকুর পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এর আগে সকালে মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে স্বেচ্ছাসেবক দল উত্তরের উদ্যোগে দুঃস্থ ছাত্রদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণ করা হয়। বাদ জোহর নয়াপল্টনে ছাত্রদলের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।  সকালে রাজধানীর শ্যামপুরের কদমতলীতে ফ্রি মেডিক‌্যাল ক্যাম্প হয়। পরে এতিমখানার শিক্ষার্থী ও দুঃস্থ নারীদের মধ্যে শীত বস্ত্র বিতরণ করা হয়।

মন্তব্য