ছেলে চাকরিচ্যুত, দুদিন ধরে অনশনে মুক্তিযোদ্ধার পরিবার

প্রজন্ম ডেস্ক

বাংলাদেশ ব্যাংকে ছেলের চাকরি ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে পরিবারের সব সদস্যকে নিয়ে আমরণ অনশন করছেন রংপুরের মুক্তিযোদ্ধা রঙ্গলাল মোহন্ত।

রংপুর বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে মঙ্গলবার তারা আমরণ অনশন শুরু করেন; বুধবারও অব্যাহত থাকে।

ছেলে সাধন চন্দ্র রায়কে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুত করেছে বলে অভিযোগ করছেন মুক্তিযোদ্ধা রঙ্গলাল মোহন্ত।

নীলফামরী জেলার জলঢাকা উপজেলার শৈলমারী থেকে মঙ্গলবার সকালে ওই পরিবারের সদস্যরা রংপুরে এসে আমরণ অনশন শুরু করেন।

রঙ্গলাল মোহন্ত বলেন, তার ছেলে সাধন চন্দ্র বাংলাদেশ ব্যাংক, রংপুর কার্যালয়ে মুদ্রা ও নোট পরীক্ষক পদে সাত বছর ধরে চাকরি করছিলেন।

“সম্প্রতি নোট গণনাকালে একটি বান্ডিলে ৫০ টাকার একটি নোট এবং ৫শ টাকার বান্ডিলে দুটি নোট কম পাওয়া যায়। এতে তাকে দোষী সাব্যস্ত করে চাকরিচ্যুত করা হয়।

“আমার ছেলে প্রথম গণনাকারী। দ্বিতীয় গণনাকারী গণনার পর চূড়ান্ত ঘোষণা করা হয়। প্রথম গণনাকারী হিসেবে আমার ছেলের ভুল হতে পারে। অথচ প্রথম গণনাকারী হিসেবে আমার ছেলেকে দোষী সাব্যস্ত করে চাকরি থেকে বাধ্যতামূলক অবসর দেওয়া হলেও দ্বিতীয় গণনাকারীর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।”

নতুন করে তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, সেই তদন্তে সাধন চন্দ্র দোষী প্রমাণিত হলে তা মেনে নেওয়া হবে। তার আগে অন্যায়ভাবে চাকরি থেকে বাধ্যতামূলক অবসর আদেশ প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত তারা আমরণ অনশন চালিয়ে যাবেন।

অনশনে মুক্তিযোদ্ধা রঙ্গলালের স্ত্রী সন্ধ্যা রানী রায়, ছেলে সাধন চন্দ্র রায়সহ পরিবারের অন্য সদস্যরাও রয়েছেন।

  

মন্তব্য