সিলেটে ১০ মাস আগের নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল,আটক ৪

প্রজন্ম ডেস্

 হাত-পা বেঁধে উল্টো করে (বাদুড় ঝোলা) ঝুলিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে। পায়ের তালুতে করা হচ্ছে একের পর এক আঘাত। নির্যাতিত ব্যক্তির আর্তচিৎকারে ভারী হয়ে উঠছে বাতাস। তারপরও মন গলেনি নির্যাতনকারীর।

বুধবার (২০ নভেম্বর) এমনই এক ঘটনার ভিডিওচিত্র ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

সিলেটের সীমান্তবর্তী জকিগঞ্জ উপজেলার কাজলসার ইউনিয়নে ভিডিওচিত্রটি ধারণ করা হয়। ১৫ জানুয়ারি মোবাইল চুরির দায়ে বাদুড় ঝোলা করে গিয়াস উদ্দিন নামের এক যুবককে নির্যাতন করেন কাজলসার ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুস সালাম।

নির্যাতনের শিকার গিয়াস উদ্দিন উপজেলার কাজলসার ইউনিয়নের বড়বন্দ গ্রামের বাসিন্দা।

ভিডিওর সূত্র ধরে বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটক ৪ জন হলেন- আব্দুছ ছালাম মেম্বার, এবাদ আলী মেম্বার, শাহজাহান ও আনোয়ার। 

ভিডিওতে দেখা যায়, একটি বাড়ির আঙিনায় গিয়াস উদ্দিনকে হাত-পা বেঁধে উল্টো করে ঝুলিয়ে নির্যাতন করছেন ইউপি মেম্বার আব্দুস সালাম। একটি লাঠি দিয়ে তিনি গিয়াস উদ্দিনের পায়ের তালুতে একের পর এক আঘাত করে যাচ্ছেন। আশপাশে লোকজন থাকলেও কেউ এগিয়ে আসেনি।

উপস্থিত এক ব্যক্তি ঘটনার ভিডিওচিত্র ধারণ করলেও ভয়ে এতদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেননি।

জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোহাম্মদ আব্দুন নাছের বাংলানিউজকে বলেন, বুধবার (২০ নভেম্বর) ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ইতোমধ্যে আমরা নির্যাতিত যুবক ও নির্যাতনকারী ইউপি মেম্বারের পরিচয় নিশ্চিত হতে পেরেছি।

তিনি আরও বলেন, মোবাইল চুরির দায়ে ওই যুবককে নির্যাতন করা হয়। এ ঘটনায় মামলা হয়নি। ঘটনার ভিডিওচিত্র ধারণকারী এতদিন ভয়ে ভিডিও প্রকাশ করতে পারেননি। এখন বিচার মিলবে, তাই সময় বুঝে তিনি তা প্রকাশ করেছেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য