বন্ধ ফ্ল্যাটে ৩ বছর আগে মৃত্যু, বোঝেনি কেউ

প্রজন্ম ডেস্ক  

তিন বছর ধরে ফ্ল্যাটে পড়ে রয়েছে মরদেহ, কিন্তু বুঝতে পারলো না কেউই। এমনকি পচা গন্ধও বের হয়নি, কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। সবই এত নিখুঁতভাবে চলছিল, কেউ একবার দরজায় টোকা দেওয়ারও প্রয়োজন মনে করেনি। এভাবেই কেটে গেছে টানা তিনটি বছর। অবশেষে অন্য একটি কাজে তদন্তের সময় দরজা ভেঙে ঢুকলে পাওয়া যায় তার দেহাবশেষ।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে ঘটেছে এ ঘটনা।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, মৃত ব্যক্তির নাম রোনাল্ড ওয়েন হোয়াইট। তিনি মার্কিন নৌবাহিনীতে চাকরি করতেন। স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর থেকে একা একাই থাকতেন ডেসোটো এলাকার একটি ফ্ল্যাটে। দেশ-বিদেশ নিয়মিত ঘুরতে যাওয়া তার শখ ছিল।

সম্প্রতি ডেসোটো এলাকার কোন কোন ফ্ল্যাটে পানি ব্যবহার করা হচ্ছে না এ বিষয়ে তদন্তের সময় রোনাল্ডের বাসায় যায় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু, কেউ সাড়া না দেওয়ায় বন্ধ দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে রান্নাঘরে তার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখেন কর্মীরা।  

রোনাল্ডের মা ডোরিস স্টিভেন থাকেন নিউ ইয়র্কের লং আইল্যান্ডে। তিনি জানান, ২০১৬ সালে তার ছেলের বয়স ৫১ হওয়ার কথা। আগে নিয়মিতই কথা হতো তাদের। কিন্তু, তিন বছর আগে হঠাৎ করেই যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

রোনাল্ডের মা অসংখ্যবার সংশ্লিষ্টদের কাছে ছেলের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন। কিন্তু, কেউ বিষয়টিতে তেমন গুরুত্ব দেয়নি বলে দাবি তার।

ডোরিস জানান, রোনাল্ড প্রাপ্তবয়স্ক ও নিয়মিত ভ্রমণে যাওয়ায় এবারের ঘটনাও তেমনটাই ভেবেছিল পুলিশ। এর জন্য নিখোঁজের অভিযোগ নিয়ে কোনো তদন্তও করেনি তারা।  

তিনি বলেন, প্রতিটি দিন আমি কষ্ট পেয়েছি। কেউ তাকে খুঁজে পেতে সাহায্য করেনি। 

জানা যায়, ভবনের উত্তর-পশ্চিম দিকে রোনাল্ডের ফ্ল্যাটটি অত্যন্ত সুসজ্জিত ও সুনির্মিত। এর সব দরজা-জানালা ভালোভাবে বন্ধ ছিল। এজন্য কোনো গন্ধ বের হতে পারেনি। 

ডেসোটোর পুলিশ বিভাগ জানায়, নৌবাহিনীর অবসর ভাতা জমা হওয়া একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে তার বাসাভাড়া নিয়মিত পারিশোধ হয়ে যেতো। 

মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে সেটি অন্তিম সংস্কারের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

মন্তব্য