মাই আউটসোর্সিং পরিদর্শন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

প্রজন্ম ডেস্ক

মাই আউটসোর্সিং লিমিটেডের বনানী প্রধান কার্যালয় পরিদর্শন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। রোববার বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিংয়ের (বাক্য) কার্যনির্বাহী কমিটির সাথে তিনি এই পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনকালে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী মাই আউটসোর্সিং লিমিটেডের ডেভেলপ করা বিভিন্ন সার্ভিস ও সলিউশন, কাজের পরিবেশ এবং বিপিও সেক্টরে প্রতিষ্ঠানটির অবদানের প্রশংসা করেছেন। এ সময় প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানজিরুল বাশার এবং চেয়ারম্যান রাজীব হোসেন ও উপস্থিত ছিলেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সুনির্দিষ্ট তত্ত্বাবধানে গত ১০ বছরে বিপিও সেক্টরে বাংলাদেশে নতুন করে কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার। বিপিও কোম্পানিগুলোর আয় বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ৪০০ মিলিয়ন ডলার এবং বর্তমানে প্রায় ১৪৯টি প্রতিষ্ঠান বিপিও সেক্টরে কাজ করছে।

শুরুর দিকে বিপিও সেক্টর শুধুমাত্র কলসেন্টার মুখী হলেও বর্তমানে নতুন নতুন অনেক কাজের ক্ষেত্র যেমন ডকুমেন্ট প্রসেসিং, আইটি সাপোর্ট, ইমেজ প্রসেসিং, মেডিকেল সাপোর্ট, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট, ইমেইল এবং চ্যাট সাপোর্ট ইত্যাদি তৈরি হয়েছে। যার ফলে এ সেক্টরে আগামী ২০২১ সাল নাগাদ প্রায় ১ লাখ কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে এবং আয় হবে ১ বিলিয়ন ডলার।

২০১২ সালে মাই গ্রুপের সহ প্রতিষ্ঠান হিসেবে শুরু হয় মাই আউটসোর্সিং লিমিটেডের যাত্রা। দেশের বিভিন্ন খাতের বড় বড় কোম্পানির কাস্টমার কেয়ার ও ব্যাক অফিস সার্ভিস দিয়ে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি। দেশের মধ্যে শতাধিক আর দেশের বাইরে পাঁচটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করছে মাই আউটসোর্সিং। জাতীয় কল সেন্টার ৯৯৯ প্রকল্পেরও সল্যুশন পার্টনার হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির বড় ভূমিকা রয়েছে।

বাংলাদেশের অনেক নামি হাসপাতালের অ্যাপয়েন্টমেন্ট ডেস্ক ও কাস্টমার সার্ভিসের জন্য মাই আউটসোর্সিংয়ের ডেভেলপ করা সল্যুশন ব্যবহার করা হয়েছে। এর বাইরে বিভিন্ন ধরনের কাস্টমাইজড অ্যাপস ও ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস দিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানটি।প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের অধীনে স্নাতক উত্তীর্ণ তরুণ-তরুণীদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দিতে এসইআইপি বা সিপ নামের প্রকল্পও মাই আউটসোর্সিং পরিচালনা করে আসছে।

মন্তব্য