যশোরের হাশিমপুরে সাবেক চরমপন্থী নেতা ও বর্তমান আনসার সদস্য হোসেন আলী খুন

প্রজন্ম রিপোর্ট

আজ যশোরের হাশিমপুর বাজারে সকাল বেলা প্রকাশ্যে চায়ের দোকানের সামনে হোসেন আলী তরফদার (৫৫) নামে এক আনসার সদস্য খুন হয়েছেন। আজ শনিবার সকাল এগারোটার দিকে হাশিমপুর বাজারে একটি চায়ের দোকানের সামনে দুর্বৃত্তরা তাকে গুলি করে হত্যা করে।

নিহত হোসেন আলী হাশিমপুর গ্রামের তরফদারপাড়ার আরশাদ আলী তরফদারের ছেলে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, একসময় সে নিষিদ্ধঘোষিত চরমপন্থী দলের সদস্য ছিলেন, ১৯৯৯ সালে সরকারের সাধারণ ক্ষমার আওতায় অস্ত্র জমা দেন তিনি। স্বাভাবিক জীবনে ফেরার জন্য তাকে সরকার আনসার বাহিনীতে চাকরি দেয়। তবে স্থানীয়দের ধারনা, চরমপন্থী দলের সদস্য থাকাকালীন সময়ে তার সাথে চরমপন্থী দলের পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হয়তো এই খুন সংগঠিত হয়েছে। এবং সে পারিবারিকভাবে বিএনপি’র সমর্থক ছিলেন।

এছাড়াও এলাকাবাসীর মধ্যে গুঞ্জন রয়েছে সদর উপজেলা যুবলীগের এক শীর্ষ স্থানীয় নেতা (অত্র এলাকার বাসিন্দা ) এর সাথে তার দীর্ঘদিন যাবৎ জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলছিলো । এদিকে অপর এক সুত্র মতে জানা যায়, স্থানীয় সন্ত্রাসী নজু বাহিনী ও সন্ত্রাসী ছবেদ আলী’র সাথেও তার শত্রুতা ছিলো। এবং গত এক সপ্তাহ যাবৎ সন্ত্রাসী ছবেদ আলীর বাড়িতে আসাযাওয়া এবং রাতে অবস্থান করছিলো চরমপন্থী দলের কিছু চিহ্নিত সদস্য।

এবং গত রাতে তার বাড়িতে একটি বৈঠক হয় বলে বিশেষ সুত্রে জানা গেছে। এবং এইসব চিহ্নিতদের আনাগোনা দেখে এলাকাবাসী ছিলো ভীত । প্রতক্ষ্যদর্শীরা বলেন, আনসার সদস্য হোসেন আলী বাজারে চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে স্থানীয়দের সাথে কথা বলছিলেন। ওই সময় কয়েকজন সন্ত্রাসীরা এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে পালিয়ে যায়। একটি গুলি তার মাথায়, আরেকটি তার বুকের বামপাশে বিদ্ধ হলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

হত্যার সংবাদ শুনে ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে যান যশোরের পুলিশ সুপার মঈনুল হক, যশোর কোতয়ালী থানার ওসি মনিরুজ্জামান সহ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
নিহতের বোন শরীফা বেগম ও মেয়ে জুলি জানান, নিহত হোসেন আলী তরফদার আনসার বাহিনীর সদস্য হিসেবে ঢাকার মিরপুরে কর্মরত ছিলেন।

গত ৪/৫ দিন আগে ছুটিতে তিনি বাড়ি এসেছেন। আজ সকালে যশোর সদরের ভেকুটিয়া এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হন তিনি।
এরপর তারা স্থানীয়দের মাধ্যমে শুনতে পান হোসেন আলী হাশিমপুরে বাজারে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

পুলিশ সুপার মঈনুল হক ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, আনসার বাহিনীর সদস্য হোসেন আলী’র খুনিরা বাজারের আশেপাশেই ছিল। তিনি আসার পর হত্যা করে স্থানীয় লোকজনের মধ্যে মিশে খুনিরা পালিয়ে যায়।
তিনি বলেন, পূর্ব শত্রুতার কারণে তিনি খুন হতে পারেন। তবে, এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

মন্তব্য