এমপির ‘হস্তমৈথুনের’ ছবিতে…

প্রজন্ম ডেস্ক

তিউনিসিয়ায় একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের বাইরে গাড়িতে বসে এক ব্যক্তির ‘হস্তমৈথুনের’ ছবি প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ চলছে। টুইটারে হ্যাশট্যাগ মিটু আন্দোলনের মতো তিউনিসিয়ার নারীরা হ্যাশট্যাগ ‘এনাজেডা’ চালু করে তাতে নিজেদের যৌন হেনস্থার ঘটনা বলতে শুরু করেছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, হস্তমৈথুনের ছবিটিতে যে ব্যক্তিকে দেখা গেছে তিনি সম্প্রতি নির্বাচিত পার্লামেন্ট সদস্য জৌহেইর মাখলৌফ। গত অক্টোবরে এক ছাত্রী ছবিটি তুলেছিলেন। মাখলৌফ তাকে যৌন হয়রানি করেছিলেন বলেও অভিযোগ করেছেন ওই ছাত্রী।

মাখলৌফ অবশ্য তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, তিনি ডায়াবেটিক রোগী। বেগ আসায় তিনি গাড়িতে বসে বোতলে মূত্রত্যাগ করছিলেন।

চলতি মাসের প্রথম দিকে অনেক নারী হ্যাশট্যাগ এনজেডা টি-শার্ট পরে পার্লামেন্টের বাইরে বিক্ষোভ করেছে। তারা এ ঘটনার তদন্ত দাবি করেছে। এমপি হিসেবে শপথ নেওয়ার পর দায়মুক্তির আওতায় রয়েছেন মাখলৌফ। অবশ্য এরপরও এক বিচারক এ ঘটনার তদন্ত করছেন।

এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ওমেন’স ভয়েসেস নামের একটি বেসরকারি সংস্থা ফেসবুকে হ্যাশট্যাগ ‘এনাজেডা’ নামের একটি পেজ চালু করেছেন। ইতোমধ্যে এই গ্রুপের সদস্য হয়েছেন ২৫ হাজার ব্যবহারকারী। এই পাতায় ব্যবহারকারীরা তাদের যৌন হয়রানির গল্পগুলো শেয়ার করছেন। সামরিক বাহিনীর সদস্য, পুলিশ, বিশ্ববিদ্যালয়-স্কুল শিক্ষক, গণমাধ্যম কর্মী ও স্বজনদের হাতে যৌন হেনস্থার শিকার হওয়ার গল্পগুলো তারা বলছেন।

মন্তব্য