৩০ টাকা চাওয়ায় স্ত্রীকে তালাক

প্রজন্ম ডেস্ক

ওষুধ কেনার জন্য স্বামীর থেকে মাত্র ৩০ টাকা চেয়েছিলেন স্ত্রী। এর জেরে তাকে তালাক দিল তার স্বামী। শুধু তাই নয়, ওই মহিলার দুই সন্তানকে কেড়ে নিয়ে তাকে গলাধাক্কা দিয়ে বাড়ির বাইরে বের করে দেওয়া হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের হাপুর জেলায়। স্ত্রীর অভিযোগ, ‘তিন বছর আগে আমাদের বিয়ে হয়েছিল। তারপর দুটি সন্তানও হয়। কয়েকদিন ধরে আমার শরীরটা খারাপ হয়েছিল। তাই ওষুধ কেনার জন্য স্বামীর থেকে ৩০ টাকা চাই।’

তিনি বলেন, ‘এই কথা শুনে রেগে ওঠে আমার স্বামী। আমাকে যাচ্ছেতাই ভাবে কথা শোনাতে থাকে। এর মাঝেই আচমকা তিনবার তালাক বলে চেঁচিয়ে ওঠে। এরপর শ্বশুরবাড়ির বাকি লোকেরা এসে সন্তানদের কেড়ে নিয়ে আমাকে বাড়ি থেকে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়।’

এপ্রসঙ্গে তার মা বলেন, ‘আমার মেয়ে অসুস্থ ছিল। তাই স্বামীর থেকে ওষুধ কেনার জন্য ৩০ টাকা চেয়েছিল। কিন্তু, ওর স্বামী রেগে গিয়ে ঝগড়া করতে শুরু করে। আর ঝগড়ার মাঝেই তালাক দিয়ে দেয়। এরপর তার পরিবারের বাকি লোকজন আমার মেয়েকে গলা ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।’

হাপুরের ডিএসপি রাজেশ সিং বলেন, ‘আমাদের কাছে একটি আবেদন জমা পড়েছে। তাতে এক মহিলা অভিযোগ করেছেন যে কয়েকদিন আগে স্বামী তাকে তালাক দিয়েছে। এর ভিত্তিতে অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছি আমরা। তদন্তের পরেই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সম্প্রতি ভারতের সংসদে পাশ হয়েছে তিন তালাক বা মুসলিম মহিলা বিল (প্রোটেকশন অফ রাইটস অন ম্যারেজ), ২০১৯। এই বিলে থাকা আইন অনুযায়ী, ২০১৯ সালের পয়লা আগস্টের পর স্ত্রীকে তিন তালাক দিলে তিন বছরের জেল হবে স্বামীর। 

মন্তব্য